...

Words to Describe Today’s Generation | Best Article 2023

Sharing Is Caring:

বর্তমান প্রজন্ম কিছু কথা কিছু ভাবনা – সঞ্জিত মণ্ডল

বর্তমান প্রজন্মের কথা লিখতে গিয়ে যে প্রশ্নটি মনে প্রথমেই স্থান পায় সেটি হলো প্রজন্ম কি? উত্তরে বলি, প্রজন্ম হলো পরম্পরা, বা বলা ভালো, প্রজন্ম হচ্ছে পুরুষ পরম্পরার এক পর্যায়। প্র+জন্মন্। বিশেষ্য পদ। আর বর্তমান প্রজন্ম হলো সমকালীন পুরুষ পরম্পরার আধুনিক পর্যায়। সমকালীনটা কোথা থেকে শুরু করবো? শুরু হবে ২০০০ শতকের প্রথমার্ধের প্রথম দিক থেকে। এই শতকের শুরুর দিকে জন্মানো ব্যক্তিবর্গই বর্তমান বা আধুনিক প্রজন্ম। এই প্রজন্মকে জেনারেশন জেড বলে ডাকা হয়। ২০২২ সালে জেনারেশন জেড এর বয়োজ্যেষ্ঠ সদস্যের বয়স হবে ২২ বছর।

বর্তমান প্রজন্ম কি রকম? এ বিষয়ে নানা মুনির নানা মত। কেউ বলেন এরা অতি চালাক, কেউ বলেন এরা এঁচোড়ে পাকা, কেউ বলেন এদের জ্ঞান বুদ্ধি কম, কেউ বলেন এদের লজ্জা শরমও কম। কেউ বলেন এরা নির্বোধ, কেউ বলেন এরা বেশ সপ্রতিভ সুবোধ, কেউ বলেন এরা বেপরোয়া, কেউ বলেন এদের ডোন্ট কেয়ার ভাব। কেউ কেউ এই প্রজন্ম নিয়ে উল্লসিত কেউ আবার তাদের নিয়ে হতাশ। কেউ বলেন এরা প্রতিবন্ধী না হয়েও আচার আচরণে প্রতিবন্ধী। এরা নাকি জামা প্যান্ট ও ঠিকভাবে পরতে পারেনা। কেউ বলেন এরা নিম্ন মানসিকতার, কেউ কেউ বলে এদের মানসিকতার কোনো হদিস পাওয়া যায় না।

কেউ কেউ এই প্রজন্মের জন্য সরাসরি ভাবেই পিতা মাতার উদাসীন মানসিকতাকে দায়ী করে বলেছেন, যে একদল স্বার্থপর লোক লোকাচার বহির্ভূত সন্তানের জন্ম দিয়ে হাত একদম ধুয়ে ফেলেছে, সন্তান কোন পথে চালিত হচ্ছে, কোনো কুসঙ্গে মিশছে কি না, সন্তানের প্রকৃত শিক্ষা লাভ হচ্ছে কি না, শিক্ষা লাভের সঙ্গে সঙ্গে তার মধ্যে মানবিক গুণাবলি প্রকাশ ও প্রস্ফুটিত হচ্ছে কি না তার খোঁজ খবর নেওয়ার প্রয়োজনই বোধ করে না। অনাদর আর অবহেলার ফলে সন্তান কুপথে বয়ে যায় আর বয়ে যাওয়া সন্তান কষ্ট করে মানুষ হবার পরিবর্তে সহজেই পাপের সহজ পথ বেছে নেয়। উদাসীন বাবা মা বুঝতেই পারেনা কখন তার সন্তান পাপের পঙ্কিল আবর্তে গলা পর্যন্ত ডুবে গেছে। এই ভাবেই তারা অতি সহজে অসামাজিক জীব তথা সমাজবিরোধী হয়ে পড়ে।

বর্তমান প্রজন্ম সম্বন্ধে আর একদল মানুষ কিন্তু আশাবাদী। তারা বলেন, আগের প্রজন্মে হাতে গোনা দু-চারজন উচ্চশিক্ষা গবেষণা ইত্যাদির জন্য বিদেশে যেতো, কিন্তু বর্তমান প্রজন্মের বহু ছাত্র ছাত্রী বিদেশে উচ্চ শিক্ষা লাভ করে উচ্চ বেতনের চাকরি করে, কেউ কেউ গবেষণা করে, কেউ ডাক্তারি প্রফেসারি করে। তারা চ্যালেঞ্জ নিয়ে বিদেশের মাটিতে শক্ত ভিটের উপর দাঁড়িয়ে আছে। বর্তমান প্রজন্ম কেবল মাত্র গড্ডালিকা প্রবাহে গা ভাসিয়ে প্রখ্যাত কেরানী কূলের সংখ্যা বৃদ্ধি না করে যথার্থভাবে লড়াই করে জাতীয় এবং আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে নিজেদের স্থান দখল করে নিয়েছে। হতে পারে তারা সময়াভাবে বা ব্যয়বহুল খরচ সাপেক্ষে বছরে এক দু বারের বেশি স্বদেশে ফিরে বৃদ্ধ বাবা মায়ের সেবা শুশ্রূষা করতে পারে না, বা নিকট আত্মীয়ের পাশে দাঁড়াতে পারে না, হতে পারে তাদের এই অপারগতার কারণে এদেশে বৃদ্ধাবাসগুলোর এতো রমরমা বৃদ্ধি পেয়েছে, তবুও শুধু মাত্র এই জন্যই এক পক্ষের যুক্তি মেনে বর্তমান প্রজন্ম কে দোষ দেওয়া যাবে না। সামগ্রিক আর্থ সামাজিক ব্যবস্থা খতিয়ে দেখে এবং সুচারু ভাবে বিচার বিশ্লেষণ করলে দেখা যাবে, বর্তমান প্রজন্মের এই অবস্থার জন্য আসলে দায়ী আমাদের দেশের ভঙ্গুর অর্থনীতি, ক্রমবর্ধমান বেকারত্ব, পারিবারিক, সামাজিক ও রাজনৈতিক অসহিষ্ণুতার প্রেক্ষাপটে নানাবিধ হিংসা ও বিদ্বেষ। তাই সব দায় বর্তমান প্রজন্মর ঘাড়ে চাপিয়ে দিয়ে হাত ধুয়ে ফেলার প্রবণতা সকলের পক্ষেই ক্ষতিকারক। যে সমাজ ব্যবস্থায় বৈষম্যই নীতি, সাম্যবাদ দুর্নীতি, সত্যবাদিতা ও ন্যায়পরায়ণতা উপহাস যোগ্য, শিক্ষক যেখানে অবহেলিত, ডাক্তার যেখানে অপমানিত, বয়ঃজ্যেষ্ঠরা যেখানে কটূক্তির শিকার, যেখানে মান্যগণ্য গুরু ঠাকুর ও বয়স্ক মানুষ ও ধর্ষণে লিপ্ত, রাজনৈতিক নেতাদের নির্লজ্জ দুর্নীতি, হাজার কোটি টাকার চুরি জোচ্চুরি, লোক ঠকানো কারবার সর্বত্র, যেখানে বিচারের বাণী নীরবে নিভৃতে কাঁদে, যেখানে পর্যাপ্ত বিচার পতি নেই, যেখানে প্রান্তিক মানুষ দারিদ্র্য আর পুষ্টি হীনতায় ভোগে, যেখানে অভাবের তাড়নায় স্কুল ছুটের সংখ্যা ক্রমবর্ধমান, সেখানে বর্তমান প্রজন্মকে সব কিছুর জন্য দায়ী করাটা একটা সামাজিক ব্যাধি মাত্র।

কেউ কেউ বলেন, বর্তমান প্রজন্ম কেবলমাত্র ভোগ বিলাসের প্রজন্ম। এই প্রজন্মের চিহ্ন হচ্ছে থ্রি কোয়ার্টার প্যান্ট, চোখে চশমা, মুখে সিগারেট আর খিস্তি, হাতে মোবাইল, কানে তার গোঁজা, রাস্তায় উদাসী চলা, ফিসফাস করে বা জোরে জোরে কথা বলা, কখনো মুচকি হাসি হেসে রাস্তায় ঘুরপাক খাওয়া, কখনো মোবাইলের আয়নায় শ্রীমুখ দর্শন করে নেওয়া, আঙুল দিয়েই চুলের বাহার ঠিক করা। সে চুলের বাহার দেখলে তাক লেগে যাবে নয়তো কেউ ভিরমি খাবে। কারোর কদম ছাঁট, কারোর আফ্রিকান নিগ্রো ছাঁট, কারোর ক্লিপ ছাঁট, কারোর চৈতন ছাঁট, কারোর ঝোটন ছাঁট কারোর আবার লোটন ছাঁট। কারোর চুল হলদেটে কটা, কারোর আবার ব্রাউনি নজর কাড়া, কারোর চুলে সাদা রঙ, অল্প বয়সে বুড়ো সাজার ঢং। কেউ রুক্ষ, কেউ নেড়া, কেউ যেন সত্যিকারের মেড়া। কেউ হাতে পায়ে ঘাড়ে গর্দানে উল্কি আঁকে, কেউ লেট নাইট পার্টি করে, কেউ অতিরিক্ত মদ্যপানের কারণে পেটের ব্যথায় ভোগে, কেউ কেউ শুকনো নেশা করে, আরও বদ নেশায় আসক্ত হয়, বান্ধবী জোটায়, তাকে নিষিদ্ধ জীবনের লোভ দেখায়, পথে নামায়, অশ্লীল ভিডিও তোলে, ব্ল্যাকমেইল করে, থানা পুলিশের হাঙ্গামা হয়, গুরুজনেরা আতান্তরে পড়ে।

বর্তমান প্রজন্ম ও বর্তমান শিক্ষা নিয়ে আলোচনা করতে গেলে প্রথমেই বলতে হয়, যে তারা কেবলমাত্র পুঁথিগত বিদ্যাই লাভ করে, ভাসা ভাসা ভাঙা ভাঙা জ্ঞান, জ্ঞানের অনুসন্ধিৎসা কম, জ্ঞান ভাণ্ডার আরও কম। প্রতিটি মানুষের মধ্যেই পাশবিক প্রবৃত্তি লুকিয়ে থাকে, সুশিক্ষাই একমাত্র মাধ্যম যা মানুষের মধ্যে পাশবিক প্রবৃত্তি দমন করে মানবিক গুণাবলির বিকাশ ঘটায়। শুধু মাত্র আমাদের দেশের শিক্ষা ব্যবস্থাই নয় সমগ্র বিশ্বের শিক্ষা ব্যবস্থাকে কলঙ্কমুক্ত করতে হবে, ইতিহাস থেকে শিক্ষা নিয়ে ইতিহাসের বিকৃতি বন্ধ করতে হবে। বৈজ্ঞানিক ও কারিগরি শিক্ষার সাথে সাথে সমাজতত্ত্ব, অর্থনীতি, দর্শন শাস্ত্র ও মনস্তত্ত্বর প্রাথমিক পাঠ অবশ্যই শিক্ষার সাথে যুক্ত করতে হবে। সামাজিক প্রথা, রীতিনীতি ও প্রাথমিক স্বাস্থ্য ও সহবৎ শিক্ষার উপর জোর দিতে হবে যাতে করে দেশের জন্য সুনাগরিক গড়ে তোলা যায়। বিদ্যা বিনয় দান করে, মহৎ লোকই বিনয়ী হয়, বিনয়ী মানুষ ই সুনামের সঙ্গে প্রভূত ধন উপার্জন করে ও সুখে বসবাস করে। কাজে কাজেই দেখা যাচ্ছে নতুন প্রজন্মকে গড়ে তোলার কাজে পিতা মাতার যেমন ভূমিকা থাকে তেমনই একই দায়িত্বশীল ভূমিকা আছে পরিবেশ, সমাজ ও রাষ্ট্রশক্তির। পঠন পাঠন, চরিত্র গঠন, শারীরিক ও মানসিক উন্নতি সাধনে সকলকে একসাথে উদ্যোগী হতে হবে, তবেই বর্তমান প্রজন্মকে ভবিষ্যতের সুনাগরিক করে গড়ে তোলা যাবে।

এটা মনে রাখার দরকার যে কোনো মানুষই অমানুষ হয়ে জন্মায় না। পারিপার্শ্বিক পরিবেশ, পরিস্থিতি, সংসর্গ, এবং অনুশাসনের ফলে প্রতিটি মানুষই ভিন্ন ভিন্ন রূপ ধারণ করে। প্রবাদ বলে, সংসর্গজা দোষা গুণা ভবন্তি। কেবলমাত্র সংসর্গ দোষেই বর্তমান প্রজন্মের অনেকেই বিপথে চালিত হয়ে জীবন নষ্ট করেছে, এই প্রসঙ্গে বলে রাখা দরকার যে, বড়ো লোকের অকাল কুষ্মাণ্ড বখাটে ছেলের পাল্লায় পড়ে অনেকেরই জীবন নষ্ট হয়েছে। কাজে কাজেই তাদের সংসর্গ ত্যাগ করতে হবে। বর্তমান প্রজন্মের বহু মানুষই অবক্ষয়ের মুখোমুখি হয়েছে অশিক্ষা, কুশিক্ষা, কুসঙ্গ, সিনেমা ও টিভি সিরিয়ালের অবাস্তব আজগুবি গপ্পো,অবৈধ প্রেম, হত্যা, খুন, ধর্ষণ, ইত্যাদি সামনে থেকে প্রত্যক্ষ করে, পর্দায় অথবা বাস্তব জীবনে। কোনো পোড়-খাওয়া খুনি বদমাইশ বা ডাকাত না হওয়া সত্ত্বেও খুন রাহাজানি ধর্ষণ শিখে যায় মোবাইল ল্যাপটপ বা কম্পিউটারের দৌলতে, এমন কি নিষিদ্ধ অস্ত্র বানানোর কৌশল ও শিখে যায় ইউটিউবের দৌলতে। হাতে হাতে ইন্টারনেট মোবাইল যেমন সুশিক্ষা দেয় তেমনিভাবে কুশিক্ষা ও দেয়। কুপথ বা কুশিক্ষার আকর্ষণ এবং আবেদন চুম্বকের মতো প্রবল। মিডিয়ার রগরগে আবেদন উপেক্ষা করার জন্য যে মানসিক জোর ও দৃঢ়তা দরকার তা চপলমতি নতুন প্রজন্মের সকলের থাকে না। সোশ্যাল মিডিয়া টিভি, সিরিয়াল, এবং বৈদ্যুতিন ব্যবস্থার উপর একটা সোশ্যাল কন্ট্রোল থাকা দরকার।

এই অবক্ষয়ের হাত থেকে পরিত্রাণের উপায়? প্রগতির দিকে পিছন ফিরে দাঁড়ালে চলবে না। শুধুমাত্র কঠোর অনুশাসন নয়, আদর যত্নও দরকার, শুধু চাবুক মারলে হবে না, স্নেহ ভালোবাসায় সিক্ত করতে হবে। বর্তমান প্রজন্মকে সুপথে ফিরিয়ে আনতে হলে পিতা মাতা, প্রতিবেশী, শিক্ষক শিক্ষিকা, শিক্ষা ব্যবস্থা,এবং রাষ্ট্রশক্তি সকলকে একযোগে এগিয়ে আসতে হবে। নতুন প্রজন্মই একদিন সুনাগরিক হবে, দেশের হাল ধরবে, তাই ইতিবাচক দৃষ্টি নিয়ে বর্তমান প্রজন্মের পাশে দাঁড়িয়ে তাদের সৎপথে ফিরিয়ে আনতে হবে, তাদের মনোবল বাড়াতে হবে, তাদের একাকীত্ব দূর করতে হবে, অলস মস্তিষ্ককে সচল সচেতন করতে হবে। মুঠোফোনে ডুবে যাওয়া প্রজন্ম, ল্যাপটপ কম্পিউটারে ডুবে যাওয়া প্রজন্ম, ডিজিটাল দুনিয়ায় ডুবে যাওয়া প্রজন্ম, নিজের মাথা খাটাতে না চাওয়ার প্রজন্ম, পোকেমন, টিকটক, টম আর জেরীতে ডুবে যাওয়া প্রজন্ম, স্পাইডার ম্যান আর হ্যারিপটারে ডুবে যাওয়া প্রজন্ম, ঠাকুরমার ঝুলি আর হলদে পাখির পালক ভুলে যাওয়া প্রজন্ম, রামায়ণ মহাভারত আর সেকালের জাতক কাহিনী ভুলে যাওয়া প্রজন্ম, ইত্যাদি বদনামে দেগে দেওয়া প্রজন্মকে মানুষের মতো মানুষ করে গড়ে তুলতে হলে বাবা মা কে নিজেদের ইঁদুর দৌড় সামলিয়ে সন্তান সন্ততি দের সঙ্গে সময় কাটাতে হবে। সন্তানের একাকীত্ব দূর করাই হোক নতুন প্রজন্মকে সুনাগরিক করে গড়ে তোলার প্রধানতম মন্ত্র।।

সঞ্জিত মণ্ডল | Sanjit Kumar Mandal

Foodie Jagannath | ভোজনরসিক জগন্নাথ | New Article 2023

Countdown 99 | বিধি রে | কুহেলী দাশগুপ্ত | New Story 2023

New Bengali Story 2023 | দুঃখিত ও ক্ষমাপ্রার্থী (পর্ব ২) | শওকত নূর

Adonis | অ্যাডোনিসঃ আধুনিক আরবি কবিতার রূপকার | 2023 Article

Words to Describe Today’s Generation | Article – Words to Describe Today’s Generation | Best Article in Bengali | writing competition malaysia | writing competition london | writing competition hong kong | writing competition game | Words to Describe Today’s Generation – essay | writing competition australia | writing competition prizes | writing competition for students | writing competition 2022 | Best Article – Words to Describe Today’s Generation | Best Article in Bengali pdf | writing competitions in africa 2023 | writing competitions for high school students | writing competitions for teens | writing competitions 2023 | writing competitions uk | bengali article writing | bangla – Words to Describe Today’s Generation | bengali article rewriter | article writing | Words to Describe Today’s Generation – writing ai | bengali article writing app | Best Article in Bengali book | Best Article in Bengali – Online | bengali article writing description | bengali article writing example | article writing examples – Words to Describe Today’s Generation | Viral Video – Best Article in Bengali | Best Article in Bengali Source | bengali article writing format | Best Article in Bengali News | bengali article writing generator | article writing global warming | article writing igcse | Ebook – Words to Describe Today’s Generation | PDF Words to Describe Today’s Generation | article writing jobs for students | article writing jobs work from home | article writing lesson plan | Best Article in Bengali Font | article writing on global warming | bengali article writing pdf | article writing practice | Best Article in Bengali Ebook 2023 | what is article writing | content writing topics 2023 | Bangla Prabandha | The Best Article in Bengali | Definite Article | Bengali Article Writer | Short Bengali Article | Long Article | Best Article in Bengali in pdf 2023 | Trending Best Article in Bengali | Bengali Article | Shabdodweep Writer | Shabdodweep | Shabdodweep Founder | Trend – Words to Describe Today’s Generation | What are the Words to Describe Today’s Generation?

2 thoughts on “Words to Describe Today’s Generation | Best Article 2023”

  1. শব্দদীপ ওয়েব ম্যাগাজিন কে অশেষ শুভেচ্ছা জানাই

    Reply
  2. শব্দদীপ ওয়েব ম্যাগাজিন কে অশেষ শুভেচ্ছা জানাই আন্তরিক অভিনন্দন প্রিয় বন্ধুরা

    Reply

Leave a Comment

Seraphinite AcceleratorOptimized by Seraphinite Accelerator
Turns on site high speed to be attractive for people and search engines.