...

Folder of Bangla Kabita | Best Bengali Poetry

Sharing Is Caring:

Folder of Bangla Kabita – Kalyan Sundar Haldar

শুধু তোমাকে চাই – কল্যাণ সুন্দর হালদার

জীবনের যত রঙ তোমাকে দিলাম
কাছে ডেকে ভালোবেসে
পাশে রেখো প্রিয়
শেষের দিনে তোমাকে ই যেন পাই
হৃদয়ের যত অভিলাষা
অঞ্জলি ভরে নিও।

শুধু মনে ভাবি তুমি কেমন আছো
মনের রঙে আঁকি ছবি
সবেতেই দেখি তুমি
হৃদয়ে হৃদয় দিয়ে দেখিনিতো কভু
পারিনি বলতে সে কথা
ছুঁয়ে দেখো এই ভূমি।

আমি অভাজন তব কুসুম কাননে
ঠাঁই হবে কবে জানিনা
কতদিন আর বাকী
ছন্দে দোলাও তব নূপুরের ধ্বনি
যে সুর হৃদয়ে বাজে
সেই সুর গায়ে মাখি।

চাবি – কল্যাণ সুন্দর হালদার

বহুদিন ধরে খুঁজি
খুঁজে খুঁজে দিশেহারা
মনের কাছে বুঝি
খুঁজি নাই শতধারা।

আপন হতে আপনার
তাকে যাই ভুলে
মিশকালো আঁধারেতে
বসে আছি কুলে।

মনের অতল গভীর তলে
তলাতলে জল
বারে বারে ডুবি আর খুঁজি
খালি হাত সম্বল।

রামছাগল – কল্যাণ সুন্দর হালদার

রামের ছাগল
পাগল হয়েছে দেখি ভাই
পাগলের মতো
কাঠি নিয়ে নাড়া চাই।

কাড়াকাড়ি করে
সকলেই কাঠি চায়
একই মাটিতে থাকি
লাঠালাঠি করে হায়।

মনের গহ্বরে
হিংসার বীজ বুনে
সবুজ পৃথিবী
ধ্বংস হয়েছে খুনে।

অচেনা – কল্যাণ সুন্দর হালদার

অচেনা কেউ তো নয়
সকলেই চেনা
সকালেই আসা যাওয়া
সন্ধ্যায় কেনা।

এপারে কিংবা ওপারে
শুধু আসা যাওয়া
দিন ক্ষণ মেপে বুঝে
বয়ে যায় হাওয়া।

আসা যাওয়ার পথে
হয় নাই দেখা
কেউ আগে কেউ পরে
বিধাতার লেখা।

ছাই – কল্যাণ সুন্দর হালদার

একটি চাপা কান্না
একটি চাপা বেদনা
একটি ফাগুনের পোয়াতি সকাল
একটি মন পায়নি।

একটি চাপা বিশ্বাস
একটি চাপা দীর্ঘশ্বাস
একটি রজনীগন্ধার সুন্দর রাত
পায়নি নতুন প্রভাত।

একটি চাপা আশা
একটি অস্ফুট ভাষা
একটি দিগন্তজোড়া মনের আর্তনাদ
ভালবাসলো চিতার আগুন।

চিল শকুনের মেলা – কল্যাণ সুন্দর হালদার

শকুন ভরা নীল আকাশে
কালো রঙের খেলা
নীলের আকাশ ব্যথায় ভরা
কাটাচ্ছে দুই-বেলা।

সবুজে ভরা এই পৃথিবীর
অবুঝ লাজুক খোকা
মনের সুখে নিশার স্বপন
খাচ্ছে শুধু ধোঁকা।

নীল পরীরা করত বড়াই
নীল আকাশে ভেসে
আজকে তাদের হাসি-খেলা
বড়ই যে একপেশে।

হঠাৎ দেখি চিলের সারি
পৃথ্বীতে আজ নেমে
গঙ্গা মায়ের স্রোতের ধারা
অমনি গেল থেমে।

চিল-শকুনে ভাগের খেলা
এই পৃথিবীর লড়াই
কবির কলমে তবুও দেখি
বাংলা মায়ের বড়াই।

বাংলা আর বাংলাতে নেই
এখন বোতল বাংলাতে
রক্ত নদীর স্রোতের ধারা
ভরে দিল জংলাতে।

কসাইখানা – কল্যাণ সুন্দর হালদার

কাঁচা মাংসের গন্ধ, কসাইয়ের লোলুপ দৃষ্টি আর
জানোয়ারের মগজ এই তিনের বন্ধনে আবদ্ধ অমাবস্যা রাতের কালপেঁচা।

সাধারণ, অতি সাধারণ আবরণহীন লজ্জা।
আলো নেই, বাতি নেই, সভ্যতার মোমবাতি নেই,
বুদ্ধিজীবীরা শীত ঘুমে আচ্ছন্ন।

সমাজের কোথাও একটা স্রোত বয়ে চলে। চোরা স্রোত। ধরেও ধরা যায়না। স্রোতে ভাসে বাসুকীনাগের বিষ।

অদ্ভুত এক সভ্যতা। আগে দেখেছি নারী ধর্ষণ হলেই মোমবাতির কারখানায় ভিড়।

রাস্তায় এক ধরনের জীব মোমবাতি জ্বেলে লাইন দিয়ে মিছিলের মত হাঁটত। এখন আর দেখা যায়না।

জানিনা তারা মোমবাতির মৃদু আলোতে কি যেন খুঁজত।

মনে হয় ধর্ষিতা যুবতীর দেহ খুঁজে বেড়াচ্ছে।

কি প্রেম সেই সব রমণীর প্রতি।

বাস্তবে সুতীব্র চিৎকারে ঘন্টা নাড়াতে পারে না।

পারেনা জয়ঢাক বাজিয়ে শোষকের ঘুম ভাঙাতে।

নেই – কল্যাণ সুন্দর হালদার

বাংলাটা ভালো নেই
ভালোবাসা মিশে নেই
রাগ, দ্বেষ বেশ বাড়া
হিংসা ও ক্লেশ ছাড়া
আর কিছু বেঁচে নেই।

বারুদের স্তূপ মরে নেই
শর্ত ছাড়া মানুষ নেই
বিবেকের দংশনে সৃষ্টি
আজ হারাল তার কৃষ্টি
সব মরা মন বেঁচে নেই।

এখানেতো সবুজ নেই
এখানেতো লজ্জা নেই
ধর্ষক পায়নিতো বিচার
নষ্ট মানুষ নষ্ট আচার
সুবুদ্ধিরা বেঁচে নেই।

এখানে সুখ বলে নেই
এই জঙ্গলে পশু নেই
লোকালয়ে দুপায়ে হাঁটে
রক্ত ও কাঁচা মাংস বাটে
এখানেতো মানুষ নেই।

মা – কল্যাণ সুন্দর হালদার

লালপেড়ে শাড়িটার সবুজ আঁচল
ঘাসফুলে ভরা তার খোল
পাড়গুলো রকমারী ফুলেই ভরা
মেয়েটির দু-চোখে বাদল।

রক্তের স্রোতে ভাসে মেয়েটার বুক
সুখের কিনারা নেই ভালে
জনম আর মরণের মাঝখানে দোলে
ভাগ্যের পরিহাস কালে ।

যখন যেখানে তখন সেখানে শুধু
ফেলেছে চোখেরই জল
সপ্ত সাগর নদী নালা খাল বিলে
জল করে টলমল।

বিশ্বে শান্তি হৃদয়ে ভ্রান্তি সব মিছে
মুখে শুধু কিছু বলা
মনের হরষে পাপের রাশিতে আজ
দ্বিধাহীন ভাবে চলা।

সূক্ষ্ম মনের কপট জানালায় দেখি
শ্বাপদেরা উঁকি মারে
বিবেক বিমুখ কলির ন-হুঁশে হাসি
ফাঁসুড়ের কাছে হারে।

বাংলা মায়ের চোখের জলেতেই
পিচ্ছিল হল বুঝি পথ
রথের রশি ছিঁড়ে গেছে আজ ভাই
রশি মেরামত করে রথ।

পান্থশালা – কল্যাণ সুন্দর হালদার

গাভীদের পান্থশালায় ঝলমলে রোদ
করছে খেলা
বন্য পশু ভিড় করেছে দুষ্টু ভেলায়
বদের ঢেলা।

নিজের হাতে সব ক্ষমতা নিজেই পরে
নিজের মালা
ডিগবাজি খায় ডিগ্রী গুলো আপন করে
বাড়ায় জ্বালা।

এই পৃথিবী চাঁদের খেলা চাঁদের হাটে
চাঁদের মেলা
ভায়ের বুকের রক্ত নিয়ে হোলি খেলা
করছে হেলা।

মনগুলো সব জুয়ায় ভরা মনের মাঝে
মনের খরা
লম্পটদের আস্তাবলে আম জনতা
দিচ্ছে ধরা।

আগুনের অগ্নিবাণে আগুন জ্বেলে
নিজের প্রাণে
নিজের মুখে লাগায় আগুন বিশ্ব জানে
হনুমানে।

দুঃশাসনের অপশাসনে মনের খেয়াল
বাজায় বাঁশি
বিভাজনের বিষের বাঁশি তৈরি করে
পাপের রাশি।

মাটি – কল্যাণ সুন্দর হালদার

মাটি মা আমার প্রাণ খুলে আর ভালবাসে না
তাই বুঝি সবুজ বন ভূমি বর্ণহীন
বিবর্তনের রূপ কলঙ্কের কঙ্কাল শুধু হাসে
অন্ধের পথ চলা শুধু লক্ষ্যহীন।

আতস বাজীর মালিক বাতাসে আবছা ধোঁয়াশা
কুয়াশার ঘন অন্ধকারে হতাশা
নিষ্ঠুর কুঠারে সন্তানের মুখের হাসিতে রক্ত ঝরে
লক্ষ আশা হারায় লক্ষ বাসা।

শুধু বারুদের গন্ধ ছেঁড়া মাদুরে শিশুর নাকে
সাম্রাজ্যবাদীদের আচরণে হাসে
মাটির গন্ধ নেই বাতাসে শুধু মৃত্যুর গন্ধ ভরা
চিতার আগুনে স্বপ্ন কার্বন ভাসে।

লেজ কাটা ধর্ম – কল্যাণ সুন্দর হালদার

ধর্মের নামে মানুষ তার স্বপ্নের প্রতিষ্ঠা চায়
সামনে -পিছনে হাজিরা দেয় সুড়সুড়ি

শুধু আগ্রাসী মনোভাব সব ঠাঁই
অথচ ধর্মের কিছুই বোঝে না
শুধু বড় বড় ধর্মগ্রন্থ থেকে মুখস্থ করা বুলি
এটা করতে নেই ওটা কর
কেউবা আবার ওটা করা ঠিক নয় এটা করলেই ভাল —
নইলে নরকগামী অবশ্যম্ভাবী

প্রত্যেকের মুখে একটাই কথা — আমরা সনাতনী
তবে এক কেন অসংখ্য?

আসলে লোভী স্বার্থপর মানুষগুলো
নিজেদের সম্পত্তি ভেবে কাটা ছেঁড়া করে সনাতন–
হাত, পা এমনকি গলা কাটতেও ভয় পায়না।

এ যেন এক লেজ কাটা ধর্ম
উড়তে পারেনা শক্তি নেই — শুধু গোঁড়ামি।

ইচ্ছেরা হারিয়ে যায় – কল্যাণ সুন্দর হালদার

পুরাতন ইচ্ছে ভরা বস্তার উপর যখন হাত বুলাই
গরম নিঃশ্বাসে হাত পুড়ে যায়

একটা যন্ত্রণার গোঁয়ানির শব্দ কানের
চিলেকোঠায় ভিড় করে

নতুন ইচ্ছেরা আসে না-বুঝে ভালবেসে
আর দরখাস্ত জমা দেয় মনের নরম দেশে।

কিছু বলতে চায় —
হয়ত কষ্টের কথা নয়তো প্রেম

সব কিছুই ঠিক ঠাক না শোনার অভিনীত
নাটকের শেষ দৃশ্য—

ইচ্ছের কুঁড়িগুলো মাটি চাপা আছে শতাব্দীর পর শতাব্দী কঙ্কাল করোটি নিয়ে—

কাঠি – কল্যাণ সুন্দর হালদার

কাঠিটারে বলি বারে বারে
ওরে কথা শোন
শোনে না বারণ
শুধু করে কাঠি,

আমি বলি লাভ নেই কিছু
ধীরে ধীরে কাটি
হবে সব মাটি
সব নয় খাঁটি।

কবেকার কথা গুলো সব
মনেতে হঠাৎ
ঘটাবে ব্যাঘাত
দিন গুনে হাঁটি।।

লাট্টু ঘুরছে – কল্যাণ সুন্দর হালদার

কেউ দেখেনি ছেলেটাকে —
লাট্টু ঘুরিয়ে চলে গেল
আর এল না কেন?

প্রতিটি পাকে পাকে বিন্যাস —

সবাই খুঁজছে হাজার হাজার বছর ধরে
কেউ পায়নি — তবুও পথ চলা—

অসংখ্য পথের সন্ধান সন্ধানীর চোখে
তবু দিশেহারা — দিশাহীন আনন্দে পথ চলা

লাট্টু ঘুরছে — ঘুরছে আরও প্রবল গতিতে

জানা পথ হয়তো অজানা পাথর খন্ডে ভর্তি

হয়তো ছেলেটি কোন এক সহজ পথের শেষে চুপচাপ দাঁড়িয়ে একা —
অধীর অপেক্ষায় —

পল্লী মা – কল্যাণ সুন্দর হালদার

পল্লী গাঁ সবুজে ঘেরা
সবুজ শাড়ী পরে
আজও আছ শক্ত হয়ে
অনেক সহ্য করে।

মাগো জানি তোমার তরে
কেউ করেনি মায়া
নিঃস্ব হয়েও আজও জোগাও
স্নেহ মাখা ছায়া।

কোলে নিয়ে লালন করে
যেই করেছো বড়ো
তখন দেখি বিদ্রোহ সব
তোমার দিকে জড়ো।

সবুজ কেটে কোঠা বাড়ি
থাকবে সারি সারি
পল্লী মায়ের কোমল আদর
আদর নয় দরকারি ।

ঢেউ – কল্যাণ সুন্দর হালদার

ঢেউ লেগেছে নদীর জলে
ঢেউ লেগেছে কুলে
ঢেউ লেগেছে ডাঙায় দেখি
ঢেউ তো ছিন্ন মূলে।

বাঁচার টনিক ছিল বুঝি
সবার কাছে বটে
এবার বেশী লাভের পালা
বুদ্ধি কোথাও রটে।

সুস্থ সবল মাঝির কাছে
নৌকা খানি ভাল
জ্ঞানের প্রদীপ অগ্নি শিখা
সলতে পুড়ে কালো।

লাশ কাটা ঘর – কল্যাণ সুন্দর হালদার

বারে বারে বন্দুক-বোমার শব্দ
আনন্দে রঙিন পেয়ালা আর কষা মাংসের গন্ধ
তবুও লড়াই সকাল হতে সন্ধে

বাঁচার আনন্দে মৃত্যু যন্ত্রণা
শরীর জুড়ে

শিরায় শিরায় আপোষহীন সংগ্রাম
কি লাভ?

নিষ্ঠুরের চতুর্দোলায় নরখাদক
উল্লাসে দিশাহীন আনন্দ

যতই গড়ি সব কিছু ভাঙার অপেক্ষা
যন্ত্র মানবও একদিন ঘুমাতে যাবে
লাশের পাশে সারি সারি লাশ——–

জিন্দা লাশের পাশে বসে প্রেমের কবিতা
বাঁচার আনন্দে উদর ভর্তি

দেখি আর ভাবি সবুজ পৃথিবীকে
একদিন লাশ হবে।

তবুও লাশ কাটা ঘরে ঘর বাঁধা।

কালি – কল্যাণ সুন্দর হালদার

দু-হাতে কালি মাখছি সারাদিন
চোখে মুখে বারণ করেনি কেউ

চোখের পাতায় ছবি আঁকি সারাক্ষণ
সকলে ঘুমায় যখন।

ভিতরে ডোনেশানের কালি
লক্ষ লক্ষ বছরের সম্বল
মূলধন বেড়েছে অনুরোধের পরমাণু যন্ত্রণায়।

অন্ধকারে অন্ধের টিপছাপ—
দুয়ারে মৃত্যুর জোয়ার

দু-চোখের পিত্তুলি কালি দিয়ে কাজল পরা
শুধু অন্ধকার ঘরে অন্ধ না হওয়ার যন্ত্রণা
বল্মিকের বাল্মিকী হবার ক্ষুধা।

একাকীত্ব – কল্যাণ সুন্দর হালদার

ভালবাসা কথা দিয়ে গেল
জীবন রাঙিয়ে দেব ভরা ফাল্গুনে

ফাটা বৈশাখ চলে গেল
তবু শ্রাবণের ধারায় খুঁজি মিষ্টি হাওয়া

কাজের মাসি আসেনি বহুদিন
সব কাজ একা একা
কথা হয়নি বহুদিন কারোর সাথে

শুধু মনের সঙ্গে অতীত স্মৃতির প্রলাপ
একাকীত্ব সারা শরীর জুড়ে নর্তন করে

ছেলেরা ফোন করেনা কতদিন
বাজে না মনের অগ্নি বীণা

অফিসের কাজের দায়িত্ব —
ছেলের দায়িত্বে বাবার মুখ ভুলে গেছে
আমাদের সেই ছোট্ট সোনা

রজনী গন্ধার মালা পরে আজ তুমি ছবি
তোমাকে ছাড়া কাকে বলব বলতো?

সেদিনের কথা মনে পড়ে
যাক সেসব কথা
তুমি কিন্তু একাকীত্বের যন্ত্রণা থেকে মুক্তি
ঠিক কিনা বলো?

খোলস – কল্যাণ সুন্দর হালদার

সেই আদিম কাল থেকে বর্মটা গায়ে আছে।
জানি না কে কখন পরালো

কার হাতে অভিষেক তার ঠিকানা জানিনা
কতদিন পরে থাকতে হবে বলে যায়নি আজও।

বর্মটা পরে শুধু ঘোরা, পৃথিবীর কানায় কানায় দেখি জীবাশ্মের স্তূপ।

এতদিন ভাবিনি কিছুই। আজ মনে হয় খুব
ভারি লাগে। চলতে কষ্ট হয়

এত রক্ত লেগেছে, রক্তের উপর রক্ত—–

খুন, মিথ্যা, প্রবঞ্চনার কালিমা গোটা শরীর
ঘিরে নাচে নর্তকীর মত

অযথা উন্নত নাসিকাধর বলে মহাপুরুষের
বানী বলে থাকি।

ভিতরে গোপন রাখি পিশাচের কঙ্কাল।

নষ্ট হবার কষ্ট কুরে কুরে খায় অহরহ ।

আজও লেগে আছে দাঁতের ফাঁকে এক টুকরো মাংসের মত

চিন্তা ক্লিষ্ট মনে কতকাল ঘুমিয়েছি হিসাবের
খাতায় বেহিসেবি সংখ্যা

সংখ্যা শুধু সংখ্যায় ভরা জীবনের পাতা–

মৃত্যুর মিছিলে চলা স্বার্থের ধ্বজা ধরে শুধু
বিরহিণীর কান্না

কান্নার ধাপে ধাপে রক্তের ছাপ ।

রক্ত তিলকে নাকি বিজয় টিকা।

যুগ যুগ ধরে বহমান রক্তের স্রোত চলে

আজও—

ছন্দের তালে তালে।

অষ্টাদশী – কল্যাণ সুন্দর হালদার

সেদিনের ছোট মেয়েটি আজ যৌবনের
নগ্নতায় ব্যস্ত—
আদিম জৈবিক প্রবৃত্তি

বাবা-মা হারা মেয়েটি খুঁজে পেল অমাবস্যায়
কলঙ্কিত চাঁদ

জীবন দিয়ে জীবন তৈরীতে ব্যস্ত
সমস্ত দিন রাত —

চাঁদের পুকুরে ডোবে সদ্যস্নাত যৌবনা
অষ্টাদশী
কিন্তু
প্রেম পেল না ভিক্ষার পাত্রে

শুধু প্রবঞ্চনা ছাড়া আরো কত কিছু

নিষ্ঠুর খালি পেটে ক্ষুধার্ত যৌবন
কামনার আগুনে

নরখাদকের বিছানায় মদের গেলাস

অষ্টাদশীর স্বপ্ন ডোবে।

দুঃস্বপ্নের কঙ্কাল ডাকে —

কাঁদে মায়া — ‘কাঁদে কায়া—
কাঁদে রঙ বাহারি পোশাকের মায়াবী সুতো

হায়রে-‘—
অষ্টাদশী তোর রাতের নগ্ন ফুলের পাপড়ি
কুড়ায় তোর ছোট ভাই
সে আজ পেটের জ্বালায় হোটেল বয়

ব্যস্ত সমস্ত দিন

অষ্টাদশীর জীবনে নামে
বারো মাসের ফুলশয্যা।

স্বপ্নের ঠিকাদার – কল্যাণ সুন্দর হালদার

নেইময় পৃথিবীর বুকে পথ হাঁটা
অনন্ত কালের যাত্রী

দু-হাতে নেই সরিয়ে ক্লান্ত অবসন্ন মনে
প্রেমের পেয়ালায়

চুম্বন করে মধুকর
নিঃশব্দে—

পোকা গুলোর নিষ্ঠুর দংশন রাতের গভীরে—

স্বপ্নের মাঝে তোমার নিতম্ব ছুঁয়ে স্নান
কদম্বের বালুকা বেলায়—‘

বালকের মতো ফুলের পাপড়ি গুলো
দোমড়ায় — মোচড়ায় —

তুমি অভুক্ত জীবনের তিস্তা

স্বচ্ছ জল তরঙ্গের মায়ার গভীরে আমি
এক ধ্যান মগ্ন ঋষি।

সুন্দর গলায় লাল মটরের প্রতিটিতে আমার
শক্ত হাতের নরম পেলবতা

সারা বুক জুড়ে বৈশাখী হাওয়ায় মালা দোলে
আর কেঁপে কেঁপে ওঠে তোমার শরীর

তোমার পুরুষ্ঠ উন্নত বুকের স্পন্দনে প্রেমিকের চোখে হাসি

অনন্ত জীবনের জ্বলন্ত চৌবাচ্চায়
পুড়ে ছাই

তুমি আমার যৌবনের মোনালিসা

সাধন পথের সঙ্গী, সাধনার মুকুটমণি
তুমি দূরে থেকেও কাছে —
আরোও – – –
অনন্ত কাল — অনন্ত রাত —

গঙ্গা নদীর চর – কল্যাণ সুন্দর হালদার

সোনার ভারত নোনায় ভরা
গঙ্গা নদীর চর
সবাই বোবা কাঠের পুতুল
ভুলেছে আত্ম পর।

বানের তোড়ে দু-কুল ভাসে
জলের উপর জল
মাঝির হাতে বৈঠা দোলে
মির্জাফরের দল।

উঠোন ভরা সবুজ ঘাসে
মুছে বিবেক নীতে
মিষ্টি প্রেমের সুবাস ফেলে
গাইছে নোংরা গীতি।

জীবন গড়ে জীবন বাঁচায়
সাধের মানব জাতি
সেই মানবের দানব নীতি
সভ্য বলেই মাতি।

মরছে মানুষ বাঁচছে মানুষ
মানুষ নামের কঙ্কালে
জ্ঞান হবেনা কোনো কালে
মারো যত ধমকালে।

নৈরাজ্যের একাদশী – কল্যাণ সুন্দর হালদার

এখানে ধর্ষণ ওখানে জখম সেখানে
খুনের ঢেউ
নীরব ভয়ের ব্যাধিতে ভোগে মানুষ
নয়তো কেউ।

রবি ঠাকুরের প্রাণের বাংলা তথা
এই ভারত
হায়নার হাঁচি দিবারাত্রি শুধু দেখি
মৃত্যুর আড়ত।

গিরগিটিরা লাফায় রঙ বদলায় সব
গাছে দেখি
আদিম রয়ে গেছে আজও সভ্যতা
হল মেকি।

শিক্ষার আজ দূর অস্ত শিক্ষার
নেই হাল
মাঠে গোরু দেখি নাতো মাঠ
ভরা রাখাল।

বিবেকের গায়ে মোটা চামড়া এই
নগ্ন সমাজে
লাভ নেই স্কুল কলেজে প্রণাম
ও নামাজে।

কবিদের ভাগ হয় না – কল্যাণ সুন্দর হালদার

কবিদের ভাগ হয়না
অন্তরে
মাঝে মাঝে দিশে হারা
মন্তরে।

দেশে থেকে দেশী হও
সত্বরে
হবে ক্ষতি বিদেশীদের
খপ্পরে।

দেশে থেকে বিদেশীদের
চামচেরা
বিচার তাদের ধর্মশালায়
চুলচেরা।

শ্রদ্ধা জানাই জন্ম ভিটে
দেশ মা-কে
লালন গীতির সুরের ধারা
মন ডাকে।

জাত বেজাতের চরণ ধোয়া
নরকুলে
অতীত রেখো সঙ্গে সাথে
না- ভুলে।

গর্ব করে হারাই দিশে
এই ভূপে
আগে পিছে যেতে হবে
এই কূপে।

কূপ জননী স্বর্গ সুধা
দিচ্ছে যার
বসন্তে সে না হারায়ে
ভব পার ।

মনের ক্ষুধা যে ধারাতে
যায় মিটে
খাড়া হয়ে দাঁড়াও দেখি
সেই ভিটে।

অন্ন হারা ছন্ন ছাড়া
বেইমানে
বিরাজ করে মিথ্যে ঘরে
দুশমনে।

বাংলা মায়ের বাতাস ভরা
প্রশ্বাসে
বাঁচি সবাই এক দালানে
বিশ্বাসে।

এরা কারা – কল্যাণ সুন্দর হালদার

মেঘের গায়ে মেঘের বাসা
চাঁদের গায়ে চাঁদ
নিত্য দেখি অ-নিত্যরে
মন-ই মরণ ফাঁদ ।

হিংসা যাদের নিঃশ্বাসে পাই
বিশ্বাসে নেই প্রাণ
আত্মা মনের সঙ্গ হারা
মিথ্যা নাড়ীর টান ।

বিজয় নিশান উড়িয়ে যারা
রক্ত তিলক পরে
জয়ের মালা গলায় দোলে
হিংসার পথ ধরে।

বিভেদ করেই মনের মাঝে
হিংসা নিল তুলে
মনের সূক্ষ্ম তুলির টানে
আপন গেল ভুলে ।

রক্ত নদীর বইছে ধারা
এই ধরণী তলে
মায়া হারায় মায়ার বাঁধন
শিক্ষা গেল জলে ।

বিপদ যারা তৈরি করে
অশ্রু ঝরায় চোখে
শেষ বিচারে রইবে পড়ে
রিক্ত অন্য লোকে।

পরম্পরা – কল্যাণ সুন্দর হালদার

এত রক্ত এত মিছিল
মিছিলেই হাঁটে রক্ত
হিংসা ভরা এই পথে
কদাকার পিচ্ছিল।

তবু জীবনের আনাগোনা
এখানে ওখানে সেখানে
ঝিমিয়ে পড়া এই জীবনে
শুধু মৃত্যুর দিন গোনা ।

ভীষণ হিংস্র আদিমে নগ্ন
রাত জাগে মহা প্রবৃত্তি
ইতিবৃত্তের রুগ্ন কলেবরে
জীবন হয়ে যায় ভগ্ন ।

মনের ভাব মনেই বিকায়
বিকারে অ-শান্ত দেশ
পরম্পরা নিপাত যাক
সৃষ্টি নতুন কিছু শিখায়।

ঘুম – কল্যাণ সুন্দর হালদার

ঘুমিয়েছিলাম মরু সাহারার বুকে কতদিন
হয়তো বহুদিন, নয়তো নয়

কালের স্রোতে দুষ্ট কর্মের অশান্ত হৃদয় তর্জমা

মাঝে কটা দিন
ফিস ফিস অন্ধকারে দিন দিন আতঙ্কে

তবু মন চায় রজনীর শেষ ঘন্টা বাঁচার আকাঙ্ক্ষা

ফিরে দেখা ভালোবাসা

অনুভবের কোমল পরশে নিঃশর্তে স্বস্তির অনুভবে
মিলেমিশে একাকার কঠিন বাস্তব …

মিশমিশে কালো রাত

পাহাড়ের বুকে অসংখ্য জনপদ সোচ্চারে …

অদৃশ্য কালো হাতের ছোঁয়া ঠান্ডা ডিপ ফ্রিজে
এক টুকরো বরফের মতো

ডাকে ভালোবেসে গোলাপি দ্বীপ পুঞ্জে বিড়ালের
কান্নার শেষ রাগিণী—

নগ্ন কঙ্কাল – কল্যাণ সুন্দর হালদার

কঙ্কাল আসে কঙ্কাল যায় বারে বারে পরিহাস
সৃষ্টির অমোঘ নিয়মে

আশি লক্ষ যোনি ভ্রমণ করেও যৌন লালসা
আজও অবিচল

তাই প্রেমের নামে যৌন তৃপ্তি,

বিবেকের গলা কেটে অন্ধকারে হাত মুছে নীতির শিয়রে দুর্নীতি

সবুজের কোলাহলে দাবানলের বিদ্রূপ

সিংহাসনের পর সিংহাসন …

আদিমকাল থেকে লজ্জা হাসে মুখ লুকায়
বাতাসে

মূর্খের সভ্যতা

অসুস্থ পৃথিবীর তাপ মাপে থার্মোমিটারে
ক্ষমতালোভীর দল

এক মুঠো অন্নে মানুষ আর কুকুরের লড়াই
যন্ত্র সভ্যতার মলাটের নীচে লুকিয়ে থাকা নিষ্ঠুর
প্রহসন

শিয়ালদহ স্টেশনের পাশে পড়ে থাকা শীর্ণকায়
আধপেটা এক চিলতে কাপড়ে ষোড়শী
বাবুদের রসালাপের খোরাক ।

কল্যাণ সুন্দর হালদার | Kalyan Sundar Haldar

Top Bengali Poetry 2022 | কবিতাগুচ্ছ | বিকাশ চন্দ

New Bengali Article 2023 | বাংলায় শিল্পে বিনিয়োগ সামান্যই

New Bengali Poetry 2023 | কবিতাগুচ্ছ | প্রবীর রঞ্জন মণ্ডল

Bengali Poetry 2022 | কবিতাগুচ্ছ ২০২২ | তালাল উদ্দিন

Shabdodweep Web Magazine | High Challenger | Shabdodweep Founder | Sabuj Basinda | Bengali Poetry | Bangla kobita | Folder of Bangla Kabita 2024 | Poetry Collection | Book Fair 2024 | bengali poetry | bengali poetry books | Folder of Bangla Kabita pdf | Bengali Poem Lines for Caption | bangla kobita | poetry collection books | poetry collections for beginners | poetry collection online | poetry collection in urdu | Folder of Bangla Kabita Ebook | poetry collection clothing | new poetry | new poetry 2023 | new poetry in hindi | new poetry in english | new poetry books | new poetry sad | new poems | new poems in english | new poems in hindi | Bengali Poem Lines for Caption in pdf | new poems in urdu | bangla poets | indian poetry | indian poetry in english | indian poetry in urdu | indian poems | indian poems about life | indian poems about love | indian poems about death | Best Bengali Poetry Folder | Best Bengali Poetry Folder 2023 | story writing competition india | story competition | poetry competition | poetry competitions australia 2023 | poetry competitions uk | poetry competitions for students | poetry competitions ireland | Bengali Poem Lines for Caption crossword | writing competition | writing competition malaysia | Bengali Poem Lines for Caption in mp3 | writing competition hong kong | writing competition game | Best Bengali Poetry Folder pdf | Trending Folder of Bangla Kabita | Folder of Bangla Kabita – video | Shabdodweep Writer | bee poem | poem about self love | story poem | poetry angel | narrative poetry examples | poetry reading near me | prose poetry examples | elegy poem | poetry reading | poetry websites | protest poetry | prayer poem | emotional poetry | spoken word poetry | poem about god | percy shelley poems | jane hirshfield | spiritual poems | graveyard poets | chapbook | poems about life | poems to read | English Literature | Folder of Bangla Kabita examples | poems about life and love | elizabeth bishop poems | poems about women | sister poems that make you cry | famous quotes from literature and poetry | mothers day poems from daughter | poem about community | Folder of Bangla Kabita Ranking | positive Best Bangla Kobita Collection | Bengali Poem Lines for Caption about life struggles | toni morrison poems | good bones poem | google poem | funny poems for adults | inspirational poems about life | friendship poem in english | paul laurence dunbar poems | freedom poem | sad poetry about life | freedom poem | sad poetry about life | Natun Bangla Kabita 2023 | Kobita Bangla Lyrics 2023 book | New Folder of Bangla Kabita | Writer – Folder of Bangla Kabita | Top Writer – Folder of Bangla Kabita | Top poet – Natun Bangla Kabita 2023 | Poet list – Kobita Bangla Lyrics 2023 | Archive – Folder of Bangla Kabita | Bangla Full Kobita | Online Full Kobita Bangla 2023 | Full Bangla Kobita PDF | New Bangla Kabita Collection | Shabdodweep Online Poetry Story | Poetry Video Collection | Audio Poetry Collection | Bangla Kobitar Collection in mp3 | Bangla Kobitar collection in pdf | Indian Bengali poetry store | Bangla Kobita Archive | All best bengali poetry | Indian Folder of Bangla Kabita | Best Poems of Modern Bengali Poets | Best Collection of Bengali Poetry in pdf | Bengali Poetry Libray in pdf | Autograph of Bengali Poetry | India’s Best Bengali Writer | Shabdodweep Full Bengali Poetry Book | Bengali Poetry Book in Google Bookstore | Google Bengali Poetry Book | Shabdodweep World Web Magazine | Shabdodweep International Magazine | Top Poems of Modern Bengali Poets | Bangla Kobita in Live | Live collection Bengali Poetry | Bengali Poetry Recitation Studio | Sabuj Basinda Studio for Bengali Poetry | Bangla Kobita Sankalan 2023 | Shabdodweep Kabita Sankalan | New Bengali Poetry Memory | History of Bengali Poetry | History of Bangla Kobita | Documentary film of Bengali Poetry | Youtube Poetry Video | Best Bangla Kobitar Live Video | Live Video Shabdodweep | Bengali to English Poetry | English to Bengali Poetry | Bengali Literature | Full Bengali Life of Poetry | Bangla Kobita Ghar | Online Live Bangla Kobita | New Bengali Poetry House | Full Bengali Poetry Collections PDF | Library of Bangla Kobita | Bengali Poetry and Story | Bengali Poetry Writing Competition | World Record of Bengali Poetry Writing | Peaceful Poetry | Online High Trend Bangla Kobita Selection | High Trend Bangla Kobita translation in english | High Trend Bangla Kobita | High Trend Bangla Kobita for instagram | romantic bengali poem lines | bengali short poem

Leave a Comment

Seraphinite AcceleratorOptimized by Seraphinite Accelerator
Turns on site high speed to be attractive for people and search engines.