...

New Bengali Story 2023 | খুনসুটি | প্রসেনজিৎ মজুমদার

Sharing Is Caring:
BENGALI STORY

খুনসুটি – প্রসেনজিৎ মজুমদার [Bengali Story]

সমর মাথা নীচু করে সিঁড়ি দিয়ে উপরে উঠে আসছে। ঠিক তখনই মিসেস গুপ্তা নামছিলেন নীচের দিকে। তিনি সমরকে দেখে থমকে দাঁড়ালেন।

— ওহ্ সমর, তোমাকে তো আজকাল দেখাই যায় না। তা কেমন আছো বাবা ?
— এই চলে যাচ্ছে মাসিমা।
— রুনু বলছিল, অঞ্জলিকে কদিন ধরে দেখছে না। শরীর খারাপ নয় তো।
— না না, মাসিমা তেমন কিছু না। আসলে ও এখন এখানে থাকছে না। ওর মাসির ফ্ল্যাট আছে অভিষিক্তাতে, ওখানেই থাকে। অফিস যাতায়াতের সুবিধার জন্য । এত দূর থেকে ওর অফিস যেতে দেরি হয়ে যায়।
— ওই কালিকাপুর অভিষিক্তাতো?
— হ্যাঁ, হ্যাঁ, ওখানেই।
— ওহ্ আচ্ছা।
— থাকি একই কমপ্লেক্সে, অথচ কারো সাথে দেখা সাক্ষাত নেই হয় না। কে কেমন আছে বুঝতেই পারি না।
— এইতো কালই মর্নিংওয়াকে মিসেস সেনের সঙ্গে দেখা হয়েছিল। উনি আমাকে বলছিলেন- ‘তোমরা নাকি ঝামেলা করে আলাদা থাকছো’। আমার তো বিশ্বাসই হয়নি। এখন বুঝলাম ব্যাপারটা। মিসেস সেন যে কি উল্টোপাল্টা কথা বলে না! যাক, তুমি আবার ওসব কথায় কান দিও না। তা বাবা তোমার একার খুব অসুবিধা হচ্ছে মনে হয়। সবে তোমাদের বিয়ের! মাস আটেক হবে তাই না ?
— হ্যাঁ, আট মাস। এর মধ্যে দুজন দুই জায়গায়। তুমি ওখানে যাতায়াত করো তো ?
— হ্যাঁ, হ্যাঁ, ওই শনি রবি ।
— তা বেশ, তবে মেয়েটাকে আরেকটু সময় দাও। ঠিক আছে মাসিমা । আপনার কথা মনে থাকবে।

রুনু, মিসেস গুপ্তার ছেলের বউ। সমর আর মিসেস গুপ্তার ছেলের একই মাসে বিয়ে হয়েছে। এক কমপ্লেক্সে দু-দুটো নতুন বউ। তবে রুনু বাড়িতেই থাকে। কিন্তু অঞ্জলি একটা প্রাইভেট কোম্পানিতে কাজ করছে। সমর ও প্রাইভেটে চাকরি করে। তবে তার অন্য লাইন, শেয়ার মার্কেট।
মিসেস গুপ্তা চলে যেতে সমর ফিরে আসে নিজের ফ্ল‍্যাটে।

পরের দিন রাত্রি নটা হবে, কে যেন কলিং বেলটা বাজালো। বোধহয় এই ফ্ল্যাটের কেউ। কারণ নটার সময় বাইরে থেকে কেউ আসে না। সমর গিয়ে দরজা খুলে দেখলো মিসেস সেন। নেশায় চুর হয়ে দাঁড়িয়ে।

— একি আপনি !
— হ্যাঁ আমি, তোমার সাথে একটু দরকারি কথা ছিল।
— দেখুন মিসেস সেন আমার মনে হয় আপনার শরীর এখন ঠিক নেই, আপনি ড্রিঙ্ক করে আছেন। এখন নিজের ফ্ল্যাটে যান কাল সকালে যা বলার বলবেন।
— কি বললে আমার শরীর নিয়ে, আমি মাতাল?
— না না, মিসেস সেন আমি তা বলিনি।
— তবে তুমি আমাকে ঘরে ঢুকতে দিচ্ছ না কেন ? আমার ঘরে ঢুকে আপনার কাজ নেই।
— চলুন, বরং আমি আপনাকে দিয়ে আসি। কই আসুন।
— না, আমি যাবো না, তুমি আমার নামে কি বলেছ মিসেস গুপ্তা কে ? কি বলেছ ? কি হল
জবাব দিচ্ছ না যে। Tell me..

সমর তার কথার কোন জবাব দেয় না। সে বুঝল এর সাথে বকে নিজের মাথাটা গরম করবো না। তাই মিসেস সেনের মুখের উপর দড়াম করে দরজাটা বন্ধ করে দিল।
— আমাকে তাড়িয়ে দেওয়া, মুখের উপর দরজা বন্ধ করে দেওয়া, আমাকে ইনসাল্ট করা এ অপমান আমি ভুলবো না।

রাত এগারোটা, সমরের চোখে ঘুম আসছে না। অঞ্জলি না দেখতে পেয়ে মনের ভিতরটা হু হু করছে। ফোনটা হাতে নিয়ে ভাবে ‘তাকে একবার ফোন করি’, কিন্তু সে আবার ফোনটা রেখে দেয়। মনে মনে বলে- “কেন আমি ওকে ফোন করতে যাব ? সে নিজে একবার ফোন করতে পাচ্ছে না। ঝগড়া কি আর কারো মধ্যে হয় না ! তাই বলে একমাস কেউ কারোর সাথে কথা নেই “। অঞ্জলি বড়লোক বাড়ির মেয়ে না হয় একটু দেমাকি। তাই বলে সমরের চুপ করে থাকাটা কি ঠিক হচ্ছে। অঞ্জলি ওর স্ত্রী, তাকে বুঝিয়ে সুজিয়ে বাড়ি আনার দায়িত্ব তার।

সমর গ্রামের জায়গা জমি বাড়ি বিক্রি করে বারাসাতের এই ফ্ল্যাট কিনেছে। তার ইচ্ছে ছিল
বাড়ি কেনার। কিন্তু তার অল্প টাকাতে তা সম্ভব হয়নি। তাছাড়া অঞ্জলির ইচ্ছে ফ্ল্যাটে থাকার। কিন্তু ওরা জানে না ফ্ল্যাটে থাকার চেয়ে নিজের বাড়িতে থাকা যে কত শান্তি। ফ্ল্যাটে একে অন্যের সাথে কথা হয়না, দেখা সাক্ষত ও তেমন হয় না। বলতে গেলে ফ্লাটে তেমন কোন প্রাণ নেই। বারাসাত থেকে অঞ্জলির অফিস যেতে আসতে অসুবিধা হয় এটা সত্যি। তাই সে অফিসের বন্ধু চারচাকা চড়ে বাড়ি ফেরে তাও সত্যি। কিন্তু ড্রিঙ্ক করে, নেশাগ্রস্ত অবস্থায় বাড়ি ফেরা সেটা কখনোই মেনে নেয়নি সমর।

বিয়ের প্রথম দিন থেকে সমর অঞ্জলিকে খুব ভালোবাসে। তাদের বিয়ের সম্বন্ধ হয়েছে আনন্দবাজার পত্রিকার ‘পাত্র-পাত্রী’ সন্ধান থেকে। ছেলে ভালো চাকরি করে, চরিত্র ভালো। হ্যান্ডসাম তাই অঞ্জলির প্রথম দেখাতেই ভালো লেগে যায়। কিন্তু সে যে নেশার বিরুদ্ধে এটা অঞ্জলি জানা ছিল না। সমর অঞ্জলিকে বার বার বলেছে সে সব সহ্য করবে কিন্তু নেশা করাটা কিছুতেই সহ্য করবে না। তার স্বত্বেও সেদিন অঞ্জলি নেশা করে রাত বারোটার পর বাড়িতে ঢোকে। যা সমর মেনে নেয়নি।

সেদিন অঞ্জলিদের অফিসে পাটি ছিল, তাই বাড়ি ফিরতে দেরি হবে বলে গিয়েছিল। তারপরেও সমর কেন যে ঝগড়া করলো তা সে বুঝতে পারছে না। আসলে সমর দেখেছিল অঞ্জলির নেশায় মত্ত হয়ে ভিন্ন নষ্টামি। যা সে সহ্য করতে পারেনি। ঘরের বউ বাইরে ইয়ং ছেলেদের সাথে নোংরামি। সমর অঞ্জলির গায়ে হাত তুলতে গিয়েও হাত নামিয়ে নিয়েছিল। বড়লোকের মেয়ে। সব কিছুতেই অভ্যস্ত কিন্তু সমর নয়। সে সাধারণ সিধেসাধা মানুষ। ভুল যে অঞ্জলি করেছে তা সে নিজেও বুঝতে পেরেছে। বর্তমান সময়ের সমরের মত একজন ছেলেকে জীবন সঙ্গী হিসেবে পেয়েছে এর চেয়ে আর বড় কী। অঞ্জলিও সমরকে ভালোবাসে। এই সামান্য ঝামেলাতে তাদের ছাড়াছাড়ি ঠিক নয় ।

দুজনের মধ্যে ইগোর লড়াই চলছে এক মাস ধরে। আগে কে কার কাছে আসবে। দুজনাই নিজের নিজের ভুল বুঝতে পেরেছে। সমর চাইছে এই বারাসাতের ফ্ল্যাট বেঁচে দিয়ে দক্ষিণ কলকাতার দিকে একটা ফ্লাট কিনবে। ওই যাদবপুর ঢাকুরিয়ার চত্বরে। তাহলে অঞ্জলির আর অসুবিধা হবে না। তবে সে এই ফ্লাটটা নতুন কিনেছে, তার পক্ষে এখনই ফ্ল্যাট বদলানো একটু সমস্যা। সমরের দু-চোখে ঘুম আসে না। সে মনে মনে ভাবে কাল সকালে অঞ্জলির কাছে গিয়ে ক্ষমা চেয়ে নেবে। তাকে মানিয়ে ঘরে নিয়ে আসবে।

কলিংবেল বাজার শব্দে সমরের ঘুম ভাঙল। সে ঘুম জড়ানো চোখে গিয়ে দরজা খুলে দেখল অঞ্জলি। সে চোখ রগড়াতে রগড়াতে বলল- তুমি ! এত সকালে ? আমি তো ভাবছিলাম আজ যাবো। যাক গিয়ে তুমি যখন চলে এলে আমি তোমার কাছে ক্ষমা চাইছি। ‘আমি আর কখন দোষ করবো না’। বলে সে অঞ্জলির পায়ের কাছে মেঝেতে শুয়ে পড়ে । বোঝাই যাচ্ছে তারা এখনো ঘুমের ঘোর কাটেনি। অঞ্জলি দরজা বন্ধ করে দিয়ে বলে- “কি হচ্ছে কি সমর! বিছানায় গিয়ে ঘুমাও, ঠান্ডা লেগে যাবে”।
ওহ্! ধরতো আমায়।

সমর বিছানাতে গিয়ে চাদরের নিচে ঢোকে, সেই সঙ্গে চাদরের নিচে টেনে নেয় তার বউকে। একমাস পর দুজন দুজনকে কাছে পেয়েছে। আর কি কেউ কাউকে ছাড়ে। সমস্ত ঘর যে ওলটপালট হয়ে পড়ে আছে, ও থাক না পরে, পরে হবে গুছান গাছন। এখন হবে দুজনের খুনসুটি।।

প্রসেনজিৎ মজুমদার | Prasenjit Majumder

Bengali Poetry 2023 | তন্ময় দাস | কবিতাগুচ্ছ ২০২৩

Bengali Poetry 2023 | তালাল উদ্দিন | কবিতাগুচ্ছ ২০২৩

Bengali Poetry 2023 | কৃষ্ণকিশোর মিদ্যা | কবিতাগুচ্ছ ২০২৩

Bengali Poetry 2023 | গোবিন্দ মোদক | কবিতাগুচ্ছ ২০২৩

খুনসুটি অর্থ | খুনসুটি প্রেম | খুনসুটি | খুনসুটি করা | খুনসুটি ভালবাসার গল্প | বেমক্কা শব্দের অর্থ কি | খুন শব্দের অর্থ কি | খুনসুটি শব্দের অর্থ | ভাইবোনের খুনসুটি | খুনসুটি – বাংলার কবিতা | বাতাসের খুনসুটি | মা-মেয়ের খুনসুটি | সবুজ আয়াতের খুনসুটি | মামা ভাগ্নের খুনসুটি | বাপ পুতের খুনসুটি | মাসি-বোনঝির খুনসুটি | কুকুর ছানার খুনসুটি | ননদ-ভাবির খুনসুটি | শব্দদ্বীপের লেখক | শব্দদ্বীপ | সেরা বাংলা গল্প | গল্প ও গল্পকার | সেরা সাহিত্যিক | সেরা গল্পকার ২০২৩ | বাংলা বিশ্ব গল্প | বাংলা গল্প ২০২৩ | বাংলা ম্যাগাজিন | ম্যাগাজিন পত্রিকা | শব্দদ্বীপ ম্যাগাজিন

bengali story | short bengali story analysis | short bengali story characteristics | short bengali story competition | short bengali story definition | Best Bengali Story | Top Bengali Story | World Bengali Story | International Bengali Story | short bengali story english | writing competitions ireland | bengali story writing practice | bengali story writing topics | trending topics for article writing 2022 | bengali story trends 2022 | content writing topics 2022 | Bangla Prabandha | Probondho | Definite Article | Article Writer | Shabdodweep bengali story | Galpoguccha | Galpo | Bangla Galpo | Bengali Story | Bengali Article | Shabdodweep Writer | Shabdodweep | Shabdodweep Founder | bengali story pdf download | bengali story audio book | bengali story audio download

Leave a Comment

Seraphinite AcceleratorOptimized by Seraphinite Accelerator
Turns on site high speed to be attractive for people and search engines.