Monday, March 7, 2022

বসন্ত পর্ব ও হলুদ ক্যারোটিন | পুরোহিত ও বসন্ত রঙের মীরা | বসন্ত ও প্রাচীন বৃক্ষের স্থূলকোণ | বিলিরুবিন ছায়াপথ ও গণিত | লীলাক্ষেত্র ও পীত রঙের যমুনা

বসন্ত পর্ব ও হলুদ ক্যারোটিন

- নিমাই জানা


বসন্ত মানেই নিয়ন্ত্রিত জরায়ুর ভেতর থাকা আগুনের এক দগ্ধ শরীর, অবৈধ দিনের প্রহেলিকা জ্বলে কালো ছত্রাকের মূলত্রানের ভেতর, সকলেই স্বপরাগী সমাকলন নারীর মতো দেখতে
আমার প্রতিটি লোমকুপে বৈরাগ্য ঢুকে গেলেই আমি কেমন বন্ধ্যা পুরুষ হয়ে যাই রাত্রিকালীন ১/২৪ প্রকৃত ভগ্নাংশের গর্ভদণ্ডের  ভেতর
অট্টহাসিতে নেমে যায় আমার প্রাচীন তিলোত্তমা নৌকাটি,
প্রাচীন বংশগতি আমাদের সহবাসের নাম, বংশপরম্পরায় কৃষ্ণচূড়া মেধা শরীরের সব ঐশীচিহ্ন নিয়ে উন্মত্ত হয়ে গেছে খেয়াঘাটে এসে তারপর আমাদের সবকিছু হারিয়ে ফেলেছি , উদ্বাস্তু হয়ে গেছে সকল পাটিগণিত বিবস্ত্র অধ্যায় , নিজেদের কাছে রাত্রির গুণক রাশি বলে আর কিছু থাকলো না মহানাদ অক্ষরের পরে
এক ধনাত্মক পুরুষ একা একা হাঁটে নৈমিত্তিক স্বৈরাচারী হয়ে আমাদের কোন দাগ না থাকার ফলেই নিজেকেই হত্যা করতে কোন তরোয়াল লাগে না
আসলে ,কৃষ্ণচূড়ার পাশে দাঁড়ালেই রাত্রি আরও দীর্ঘতর হয় অবিবাহিত ভৌগলিক চিহ্নের মতো
চাঁদ সব সময়ই কম্পিউটারের স্ক্রিন সেভারের পরকীয়াকে নির্দেশ করে

পুরোহিত ও বসন্ত রঙের মীরা

- নিমাই জানা


সব কবিতার শেষে একটি পূর্ণচ্ছেদ আর কিছু  অবিবাহিত পুরুষ সর্বদা জিরো ভগ্নাংশের ব্রাহ্মণ পুরোহিত হয়ে যায়
ব্রহ্মাত্মা আর হলুদ দুপুরের প্রহর কখনোই এক সমাক্ষরেখায় থাকে না
ব্রাহ্মণ হয়ে যায় পুরোহিতের নাভি , পুরোহিত কখনোই ব্রাহ্মণ নয়
সকলের পিঠের কাছে জন্মেঞ্জয় পুরোহিত বসেছিল খুব পুরনো এক বিনিদ্র মেডিকেল শপের নিচে, ওভরাল এল কিনতে সর্বদাই গোপনীয়তা রাখা উচিত নয়
আমি মীরা নামের আগে দীর্ঘ ঈ কার চিহ্নটি বসানোর পর ভঙ্গিল হয়ে গেছে গন্ধরাজ পাখিদের ঠোঁট
জীবাশ্ম নামের কোনো প্রস্তর যুগের বন্ধু ছিল না আমার
নীলনদে ডোবানো ঠোঁটের কাছে দাঁড়িয়ে ড্রোটাভেরিন আর পিচ্ছিল ঠোঁটের গলনাঙ্ক মেপে নিতে নেই ভোর সন্ধ্যাবেলায়
নোনাচরে দাঁড়িয়ে দেখে নিতে হয় একোনাইট মাদার নামে বিষধর থলিটি জনহীন নদীর চরে দাঁড়িয়ে কতজনকে হত্যা করতে শিখেছে অবৈধ দুপুরে
নিজেকে হত্যা করতে ১৩ দিন বিষাক্ত কক্ষে রাখার পর কৃষ্ণচূড়ার ঠোঁট মুখে রাখলে তবেই জন্ম নেবে বিশুদ্ধ পরকীয়া
জ্বর মুখে কতজন সহবাসের সম্পাদ্য মুখস্ত করে

বসন্ত ও প্রাচীন বৃক্ষের স্থূলকোণ

- নিমাই জানা


আমি উলঙ্গ শরীরে দেখি সকলেই পালক রঙের পরিচ্ছদ খুলে রেখে নোনা হাওয়ার মাইটোসিস ছাত্রী হয়ে যাচ্ছে প্রাচীন বৃক্ষ তলায় , বোধিবৃক্ষের পুং জনন তন্ত্রের স্থূলকোণ পরিমাপ কত
এক দীর্ঘকায় ছাড়পত্র লিখে দেওয়ার পর গোপনে নীরব হয়ে বসে থেকেছি ইছামতীর কাছে , নদীটি প্রাচীন অন্তিম সহবাসের ভৌম জল মেখে নিয়েছে ক্যাকটাস গাছের আয়ু মিশিয়ে
আমাদের জীবন লিখে চলেন মনু ও সাত্ত্বিক , শুক্রাণু কিলবিল করে উঠলেই লিউকোরিয়া রোগীদের কাছে হাঁটু মুড়ে বসি গাণিতিক রজঃস্রাবের কথা তুলে ধরে
রৈখিক বন্ধনীর মতো কোন অসুখ দীর্ঘতর নয় , শ্মশানের কাছ থেকে ফিরে এসে সকলেই একটি আবছায়া ফাটিলাইজার দোকানের সামনে দাঁড়িয়ে নিজেদের শরীরে গজিয়ে ওঠা রজনীগন্ধা ফুলগুলো তুলে নিচ্ছে গোপন অসুখের মতো
ল্যাকটিনাইজিং হরমোন একটি নীরবতার নাম
কাঁচের পালকের উপর অজস্র সিমটোম্যাটিক্যাল ক্ষত রেখে দেওয়ার পর পুরুষরাই নারী হয়ে যায় অবৈধ কাঁঠালিচাঁপা তলায় রাতের কোন নিজস্ব পোশাক নেই ,
শিউলি ফুলের প্রতিটি পুরুষ শিউলি ফুল মাথায় নিয়ে নোনা উর্বরতায় নেমে যায় মহাপর্ব শিখে নেওয়ার পর


বিলিরুবিন ছায়াপথ ও গণিত

- নিমাই জানা


একটি বিলিরুবিন ভাঙ্গা শরীর কাঁচের আয়নার তলপেটে দাঁড়িয়ে নিজের পাণ্ডবেশ্বর ছায়াকে পথিক ভেবে নিতে পারে
সমাধির পর দাঁড়িয়ে কতবার অসুখের ট্রাপিজিয়াম ভেঙে ফেলেন আস্তিক্য, তপোবনে কেউ স্বৈরাচারী গণিত বিশারদ ছিলেন না
তাই পাণ্ডবেশ্বর একাই নীল ট্রাপিজিয়াম
সন্ন্যাসীর লিটমাস ঠোঁটে পলাশ পাখিরা ফেলে যায় সূক্ষ্মকোণের সূর্য ও চাঁদের অবৈধ তাপীয় অবকলন ,
আমি রাতের ইমপোটেন্সি পুরুষদের চুম্বকীয় দৈর্ঘ্যকে আঁকড়ে রাখি বাবলা গাছের তলায়
বাবলা গাছের কোনদিন বিধবা নারী পোশাক ছিল না ,
শরীর থেকে থার্মাল আয়োনাইজেশন দেখতে দেখতেই একটি প্রাচীন নাবিক ঋষিজটার মূলরোম উপড়ে ফেলে
আমাকে কালো রঙের জ্বর আঁকড়ে ধরে প্রতিদিন সপ্তম প্রহরে ভাঙ্গা দাঁতের ভেতর নিয়ে ঢুকে যাই ফিজিকেল সায়েন্সের আইসোটোপ সংসার খাতায়
একটি নারী সর্বদাই আইসোটোপের মতোই অমৃত স্থানাঙ্কে অবস্থান করে
ডান অলিন্দের উপর থাকা পর্ণমোচী শিশুরা ছায়াবৃত্ত এঁকে যায় মৌসুমী সন্ধ্যাবেলায়

লীলাক্ষেত্র ও পীত রঙের যমুনা

- নিমাই জানা


আমি এক ফেরিওয়ালার বৈরাগ্য রঙের অন্তর্বাসগুলো কিনে ফেলি প্রতিদিন সন্ধ্যাবেলায় ,
ব্যাকরণ ছাত্রীরা একটি দুপুরের সন্ধি বিচ্ছেদ লিখতে পারেনা কোনমতেই, কৃষ্ণচূড়ার ক্রনিক অসুখ জোরালো হলে গায়ত্রী গেয়ে ওঠে বিষাদ যোগের কালো সাপ
মৃত যমুনার তীরে দাঁড়িয়ে শুধু জলক্রীড়ার সমার্থক শব্দ পড়ে নিতে পারি বিরজা ক্ষেত্র দিয়ে, পুলিনবিহারী এক অসম্পৃক্ত দ্রবণের নাম যাদের ক্লিভেজে বিভাজ্যতা রং নেই
আমি সবুজ দ্রাঘিমার আগুন পুষে রেখেছি প্রায় এক শতাব্দী ধরে
নীরবতাই সবথেকে বড়ো ম্যাগনিফাইং গ্লাসের মতো চকচকে, চুম্বকীয় দৈর্ঘ্যের নাব্যতা মাখতে মাখতে প্রাচীন নাবিক ফিনফিনে গর্ভনিরোধক কিনে বাড়ি ফিরে আসে নিকোটিন বৃক্ষের তলা দিয়ে
আমি তাদের মৃত ম্যানেনজাইটিস রোগী বলে দানাদার দামোদরে নেমে যাই ডলফিন বিউটি পার্লারের ভ্রু হীন কার্সিনোমা নারীটির হাফহাতা ব্লাউজের পাশ দিয়ে
আমাদের দেখে ঘৃতাহুতি দেয় তিন মাথার মোড়ের প্রেতযজ্ঞ ও গোলাপি পুরোহিত
পুষ্কর নাম দিয়েছি গতকাল, শোকের কোন অশ্রুবিন্দু নেই বলে শোক একটি সপুষ্পক উদ্ভিদ বিসর্গ চিহ্ন ফেলে ধ্রুবতারা হয়ে গেছে ক্যাকটাস বৃক্ষ তলায়
বারানসী অবৈধ ব্রহ্মার যতিচিহ্ন লুকিয়ে রাখে অনুপম আনন্দে
দ্রবণহীন অশোক কবিতার মধ্যবিন্দুতে দাঁড়িয়ে কেবল শ্মশানের
কাঠপাখি উড়িয়ে চলে একযোজী মৌলের মতো
আমি রাতের নেফারতিতি দেহে টাঙ্গানো জলীয় ওষুধ খেয়ে বাড়ি ফিরি বসন্ত পোশাক পরে,
১০.১৫ একটি সিঁড়ি ভাঙা সাপ ও হিমোগ্লোবিনের নাম


বসন্ত পর্ব ও হলুদ ক্যারোটিন | পুরোহিত ও বসন্ত রঙের মীরা | বসন্ত ও প্রাচীন বৃক্ষের স্থূলকোণ | বিলিরুবিন ছায়াপথ ও গণিত | লীলাক্ষেত্র ও পীত রঙের যমুনা | লীলাক্ষেত্র | বিলিরুবিন কি | সিরাম বিলিরুবিন কি | বিলিভার্ডিন | বিলিরুবিন এর কাজ কি | বিলিরুবিন পরীক্ষা | বিলিরুবিন তৈরি হয় কিভাবে | বিলিরুবিন তৈরি হয় কোথায় | বসন্ত বিলাস | বসন্ত বিলাপ | বসন্ত বিলাপ হুমায়ূন আহমেদ | বসন্তের আগমন | ঋতু রাজ বসন্তের আগমন | বসন্তের আগমন কবিতা | বসন্তকালের উৎসব | বসন্তকে ঋতুরাজ বলা হয় কেন | বসন্তের ফুল ও পাখি | বসন্তের ফুল ও ফল | হলুদ ক্যারোটিন | মীরাবাঈ | শ্রী কৃষ্ণ ভক্ত মীরা | মীরাবাঈ কেন বিখ্যাত | রাধা ও মীরা | মীরা ভজন | বিটা ক্যারোটিন কি | ক্যারোটিন এর কাজ কি | ক্যারোটিনয়েড কি | কবিতাগুচ্ছ | বাংলা কবিতা | সেরা বাংলা কবিতা ২০২২ | কবিতাসমগ্র ২০২২ | বাংলার লেখক | কবি ও কবিতা | শব্দদ্বীপের কবি | শব্দদ্বীপের লেখক | শব্দদ্বীপ

Basanta Bilash Mess Bari | Bosonto Bilash | Mirabai | Bengali Poetry | Bangla kobita | Kabitaguccha 2022 | Poetry Collection | Book Fair 2022 | Bengali Poem | Shabdodweep Writer | Shabdodweep | Poet

নিমাই জানা | Nimai Jana







No comments:

Post a Comment