Monday, March 7, 2022

আজি এ বসন্তে - কুহেলী দাশগুপ্ত [শব্দদ্বীপের বসন্ত সংখ্যা] [গল্প | Galpo | Story] 2022

Kuheli 1st

[সেরা বাংলা গল্প ২০২২]
[১ম সেরা]
[মার্চ ১ম সংখ্যা] [পঠন / দর্শন সংখ্যার ভিত্তিতে বিচার]

আজি এ বসন্তে

- কুহেলী দাশগুপ্ত


 দক্ষিণের জানালা পথে ঝিরি ঝিরি হাওয়ার অবাধ আনাগোনা। চুলগুলো এলোমেলো উড়ে কখনো কপালে, কখনো গালে ছুঁয়ে জ্বালাতন করছে।আনমনা  রিনির স্বপ্নের ঘোর লাগা চোখের দৃষ্টি ভাবনা অন্য কোথাও পথ হারিয়েছে। বইয়ের ভাঁজে রাখা ছোট ছোট চিঠিগুলো তাকে ভাবাচ্ছে। হস্তাক্ষর খুব চেনা যেন! কিন্তু সেই চেনা জনের স্বভাব বিরুদ্ধ এমন কাজ-রিনি তেমনটাই জানে।তবে এই চিঠিগুলো? কে লিখেছে তাহলে? মৈনাকদা কি সত্যিই তাকে.....?

     কিছুদিন ধরে এই ঘটনা হয়ে চলেছে। বাড়ির সামনের খোলা চাতালে শুকোতে দেয়া রিনির স্কুলের ইউনিফর্মের পকেটে একটা চিরকুট পাওয়া যাচ্ছে। ছোট্ট  কাগজ, ভাঁজ করা। স্কুল যাওয়ার সময় তৈরি হতে গিয়ে পকেটে হাত দিয়ে প্রথম কাগজটা যেদিন পেয়েছিল, অবাক হয়েছিল রিনি।
--"ভালোবেসে সখী নিভৃত যতনে, আমার নামটি লিখো তোমার মনের মন্দিরে"। 
কে লিখেছে?এমন বার্তা তার জন্য? পড়ে রিনির ফর্সা গালে লালিমা ছড়িয়েছিল। ঝটপট লুকিয়ে ফ্যালে। ভাই, মা, বাবা কেউ এসে পড়লে! 
আগামী বছরের উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার্থী রিনি পড়াশোনার ব্যাপারে খুব সিরিয়াস। মাঝে মাঝে পাড়ার মৈনাকদার কাছে কখনো ফিজিক্স বুঝতে যায়। সময় পেলে মৈনাকদাও আসে। মৈনাক কলেজের পর্ব গুছিয়ে এবার ইউনিভার্সিটিতে। রিনির ভালো লাগে মৈনাককে। কিন্তু পড়াশোনার চাপ আর রোজকার বাঁধা নিয়মের বাইরে তার অন্য কিছু ভাবা হয়ে ওঠে না। আরেক দিন সকালে আবার  কাগজ বার্তা জামার পকেটে।
-"আমার প্রাণের গভীর গোপন, মহা আপন সে কি"
রিনি ভাবনায় পড়ে যায়। তার কি মায়ের কাছে জানানো উচিত? শুকোতে দেয়া জামার পকেটে কে, কখন রাখছে এসব? নাহ্! থাক। আবার ফালতু ঝামেলা হবে। দেখাই যাক কতদূর গড়ায় ব্যাপার। রিনির কেবল মনে হচ্ছে, হাতের লেখা মৈনাকদার।
 আজকাল পড়তে বসে আনমনা হয় রিনি। কখনো বাবা এসে পেছনে দাঁড়িয়ে। টের পায়না সে।
--কি রে মা? পড়ছিস তো? মন দিয়ে পড়। কি এতো ভাবছিস?
---কিছু না বাবা, এমনি।
মনে মনে লজ্জা পায় সে। যে লিখেছে, লিখুক। সে কিছুতেই আর এসব নিয়ে ভেবে সময় নষ্ট করবে না। মান্থলি এক্সামে বাজে রেজাল্ট হলে, পেরেন্ট টিচার মিটিং, বকাঝকা। 
  এক ছুটির  দিনে বিকেলে ঘর  থেকে  শুনতে পায় ,মা কাকে খুব ধমকের স্বরে কিছু বলছে। দোতলার বারান্দা থেকে দেখতে পায় সে, ফেলুদাকে মা খুব বাজেভাবে ঝাড়ছে।
--কি মনে করে পল্লব?  যদি কোন দরকারে এসে থাকিস, এই কাপড় জামার মাঝে কি করছিস?
-না মানে একটু-ভ্যাবাচ্যাকা খাওয়া পল্লব (ফেলু) র কোন সদুত্তর  নেই। পল্লব  মৈনাকদের পাশের বাড়িতে থাকে। তিন বছর  ধরে স্কুল ফাইনালের গন্ডীতে খাবি খাচ্ছিল বলে, পাড়াতে আড়ালে ফেলু বলে অনেকে। রিনির মা তো রেগে ডিনামাইট একেবারে। 
--দ্যাখ পল্লব, পড়াশোনা না হয় করলি না। তাই বলে, কোন ভুলভাল  কাজ করে মা বাপের নাম খানা ডুবাস না। তোর মতি গতি কেমন যেন সন্দেহ জনক।
--না কাকিমা, এমনিই এসেছিলাম। বলে কোন রকমে পালিয়ে বাঁচল।
রিনির ভয় হল। এসব কি তবে পল্লবদার কাজ? মা কি কিছু জেনেছে? রিনিকে আবার ভুল ভাববে না তো? পল্লবদার মুখের অভিব্যক্তি দেখে রিনির হাসি পাচ্ছিল।

 কি মনে করে রাতে আবার চিঠির হরফের সাথে মৈনাকদার হাতের লেখা মিলিয়ে দেখল রিনি। একদম হুবহু। এক ধরন। কিছু ব্যাপার তো রয়েছে। তাকে জানতে হবে। সরাসরি মৈনাকদার কাছে জানতে চাইবে? যদি কিছু মনে করে? মনে মনে মৈনাকদাকে তার ভালো লাগে।

   দোলের দিন মৈনাকদের বাড়িতে বড় আয়োজনের পুজো হয়। আত্মীয় পরিজন, প্রতিবেশীদের  সমাগম হয়। সপরিবারে রিনিরাও। আবীর খেলা হয়। আবীর নিয়ে চুপি চুপি মৈনাকের ঘরে গিয়ে এক মনোযোগী পাঠককে আবিষ্কার করে সে। ধীর পায়ে এগিয়ে দু'গালে আবীর মাখিয়ে বলে,
--বাব্বা! আজকের  দিনে ও পড়া!তোমার হবে।
মৈনাক একটু বিরক্তি নিয়ে, 
---কি করলি বল তো! এটা আবীর মাখানোর জায়গা? বইতে সব পড়ল!
রিনি চিরকুটগুলো দেখিয়ে বলে,-এগুলো তোমার  লেখা ?
মৈনাক একটু চমকে  বলে, "তোর কাছে কিভাবে?পল্লবটা ক'দিন ধরে খুব জ্বালাচ্ছিল। বলে, তোর হাতের লেখা ভালো। দুটো গানের কলি লিখে দিতে বলল। ওর বান্ধবীর জন্য"। 
রিনি স্মার্টলি বলে," আর তুমিও লিখে দিলে। এগুলো আমার  কাছেই  এসেছে। তোমার  কি মনে হয়? আমি এসব অ্যাকসেপ্ট করব?"
--তা আমি কি জানি!তোর ব্যাপার তুই বুঝবি। 
রিনি আরো কাছে এগিয়ে-"তাই তো। তবে কি জানো তো, এই লিপিকারকে আমার খুব ভালো লাগে। যদি তুমি মানতে না পারো, তোমার ব্যাপার"। 

মৈনাক রিনির চোখে তাকিয়ে যেন অন্য ভাষা খুঁজে পায়। তার অচেনা, কিছুটা পরিণত। ভালো লাগার আবেশ তো তার মনেও। বাইরে রঙ খেলার হট্টগোলের আড়ালে নিভৃতে দুটি মন কাছাকাছি এগিয়ে গেল।


আজি এ বসন্তে | আহা আজি এ বসন্তে এত ফুল ফুটে | বসন্তের গান রবীন্দ্র সংগীত | কবিতাগুচ্ছ | বাংলা কবিতা | সেরা বাংলা কবিতা ২০২২ | কবিতাসমগ্র ২০২২ | বাংলার লেখক | কবি ও কবিতা | শব্দদ্বীপের কবি | শব্দদ্বীপের লেখক | শব্দদ্বীপ | বাংলা গল্প | গল্পগুচ্ছ | গল্প সমগ্র ২০২২ | সেরা বাংলা গল্প ২০২২

Aaji E Bosonte | Karaoke of aha aji e bosonte | Bengali Poetry | Bangla kobita | Kabitaguccha 2022 | Poetry Collection | Book Fair 2022 | Bengali Poem | Shabdodweep Writer | Shabdodweep | Poet | Story | Galpoguccha | Galpo | Bangla Galpo | Bengali Story


কুহেলী দাশগুপ্ত | Kuheli Dasgupta






1 comment: