Friday, January 21, 2022

৪টি কবিতা - গৌতম তালুকদার [প্রশংসাপত্র] [জানুয়ারি ২য় সংখ্যা]

Goutam Talukder 2nd Jan
[২১শে জানুয়ারি, ২০২২ থেকে ৬ই ফেব্রুয়ারি, ২০২২ পর্যন্ত]
[বেশি সংখ্যক পাঠক দ্বারা নির্বাচিত] [জানুয়ারি ২য় সংখ্যা]

ফুলের জন্ম

- গৌতম তালুকদার


ফুটিল ফুল চম্পা, চামেলি, বেলি
জুঁই, রজনীগন্ধা, টগর, করবী।

ভ্রমর ঘুরে ঘুরে করে গুঞ্জন 
ঝুপ ঝাপ বসে রেণু আহরণে
আহা চমৎকার মধুরো মিলনে।

ফুল বলে ওগো প্রিয় মুধু খেয়ে
উড়ে যেয়ো নাকো মেলে দুটি পাখা 
আমি যে বন্দী বোঁটায় একলা অবলা।

তোমাদের ভোগে সঁপেছি নিজকে
প্রতিদানে চাইনি কোনই তো প্রতিদান।

ফুলের জন্ম নিয়ে ছড়াই বাতাসে সুবাস
বিধাতার ইচ্ছেতেই চরণ ছুঁতে পারি তার।

এক পশলা বৃষ্টি

- গৌতম তালুকদার


কিছুক্ষণ আগে আর একবার 
এক পশলা বৃষ্টি। 
আজকে'র এ বৃষ্টি ।
মনে করে দেয় বার বার সেই দিন।
তুমি চন্দ্র মল্লিকা,  
খোলা আকাশের নীচে            
ওরা তোমায় ভিজিয়ে দিতেই
লজ্জা পাখায় ছুটে গিয়ে আশ্রয় নিলে,
যে বকুল শাখার নিচে......!

ফুলেরা খিল খিলিয়ে 
হেসে হেসে এমন ঝরে পড়ছিল;
ওরা যে তোমার আঁচল ছুঁতে পারে 
ভেবেছো কি ??
বৃষ্টির কি ভুল হলো ?

বকুল প্রিয়া

- গৌতম তালুকদার


তাই তো হলো ওরা তোমায়
স্পর্শ করতে করতে 
তোমার কোলে কাঁধে মাথায় 
সাম্রাজ্যে বিস্তার করে নিলো।

আর তুমিও আপ্লুত,গেয়ে উঠলে-
ও বুকল ও বকুল ফুল 
ঝর্ণা হয়ে ঝরলে তুমি
শ্রাবণ;ভেজালো চুল।

তখন চিলে কোঠার জানালায়  
জীবনানন্দের চোখ দেখেছি 
"বন লতা সেন"
ফিরেছে বকুল প্রিয়া,বকুল বনে।

আমি কী বেঁচে আছি??

- গৌতম তালুকদার


হারিয়ে  ফেলেছি যা ছিলো যাপন ছন্দে। 
আজ কেবল বাঁচার পথ,নদী-অরণ্যে
বোধ করি শব্দের মালা গাঁথায়।

বিচিত্র রূপ,রস,গন্ধে কেটেছে সময়
ভাবি কতো ময়লা জমছে চলার পথে।
ফিরেও দেখা হয়নি আমিত্বের অহং,
এ ভুবন দেখালে চেনালে
তারেই আছি ভুলে মোহ- লালসার জিভে!

হয়নি গাওয়া পূজা পর্যায় 
দেখিনি খঞ্জনা নদী দারুচিনি দ্বীপ        
ধান সিঁড়ি নদী, যেখানে দু দণ্ডের শান্তি ।

বেলা তো গড়িয়ে যাবেই ঘড়ির কাটায় 
দিবা নিশি স্রোতের মতো চলে
পড়ে থাকা কাঁকর জমি ফিরেও দেখিনি
সাজাইনি সবুজের ডালা।
পাথর না ভেঙ্গে মসলিন হেঁটেছি পথে,
অশ্রুবাণে ঝরে গেছে কত শত অঙ্কুর।

আজ দেখি লাইনের শেষে দাঁড়িয়ে ; 
আমার আমি ঘৃণার চোখে দেখে আমায়
নিত্য মরি বিবেক যাতনায় তবু বেঁচে আছি।

আমি কী বেঁচে আছি ??

No comments:

Post a Comment