Wednesday, December 22, 2021

আলতা সুন্দরী - কৃষ্ণকিশোর মিদ্যা [ছবি দেখে লেখা - পর্ব ১২]

আলতা সুন্দরী

- কৃষ্ণকিশোর মিদ্যা


খুব তার প্রিয় ছিল আলতার শিশি,
বড্ড বকুনি দিত, মা মাসি পিসি।
যখন মেলায় যেত, কিভাবে সে খুঁজে পেত,
চুড়ির দোকান।
কিছু তো নেই নাকে, কিনে দেয় কে যে তাকে,
ফাঁকা আছে ,দুই কান।
ওসব না হোক তার, লোভ নেই বেশি ।
কিন্তু একটা চাই আলতার শিশি।

সখি যত মিলে হত পুতুলের খেলা,
আলতায় রাঙা দু পা , বিকেলের বেলা।

একদিন বেজে ওঠে সুরেলা সানাই,
পালকি সাজিয়ে আসে নতুন জামাই।
উত্তর কিশোরী কাল, আজ তার বুক দুরুদুরু,
কাঁপে যেন কোন এক আমলকী তরু।
চোখের জলেতে ভাসে বরণের ডালা,
মলিন যে হল তার কণ্ঠের মালা।
আলতা রাঙা পা দুখানি বরণ পিঁড়িতে,
মায়ের চোখের জল , না জানে থামিতে !
আঁধারে ঢেকেছে আজ মায়ের ভুবন,
' পরের ' বাড়িতে যায় , নাড়ি ছেঁড়া ধন।

নাকেতে নোলক তার , কানে দোলে দুল,
খোঁপায় শোভিত আজ গোলাপের ফুল।
দু পায়ে আলতা রাঙা, নখেতে কুম কুম,
স্বামীর ঘর তার, উৎসবের ধুম।

ননদিনী রাঙায়েছে , কচি দুই পা।
শাশুড়ি বলেছে , - ' অষ্টমঙ্গলা যা।'

আলতা সুন্দরী যায় পিতার ভবন ,
সেথা প্রিয় মুখ সব ,ভাবে অনুক্ষণ !

No comments:

Post a Comment