Monday, December 13, 2021

আকাশ লীনা - কুহেলী দাশগুপ্ত [ছবি দেখে লেখা - পর্ব ৩]

আকাশ লীনা

- কুহেলী দাশগুপ্ত 


 নীল সাদা রঙের মেঘমুক্ত আকাশ দেখে হিয়ার মন ভাল হয়ে যায়।ক'দিন ধরেই মেঘলা আকাশের মনমরা ভাব চারপাশটা বিমর্ষ  করে রেখেছিল।ধূসর বরণ মেঘের আনাগোনা দেখে মন ভারী হয়। কত কঠিন  স্মৃতি মনকে উদাস করে!বিগত কয়েক বছর ধরে জানালার পাশে এই খাট বিছানার বিশ্রামে হিয়ার জীবনটা স্তব্ধ হয়ে পড়েছে।সারাদিন জানালার পাশে বসে আকাশের ভিন্ন  এক এক রূপান্তর দেখে কখনো সে মোহিত হয়,আবার কখনও মন খারাপের পশরা সাজিয়ে একাকীত্বে মগ্ন হয়ে থাকে। সংসার, মায়া সকলই অর্থহীন মনে হয় তার। মানসীদির সযতন দেখভাল আর ডাঃ কাকুর প্রেসক্রাইব করা ওষুধের গুণে উঠে বসার  জোরটুকু পায় সে।তিন বছর আগে একটা দুর্ঘটনায় হাঁটুর নিচ থেকে দুটো পা -ই বাদ যায় তার। এই স্থবির জীবনে মনের সঙ্গী  হয় আকাশ, মেঘ আর রৌদ্রছায়ার পালা বদলের খেলা। ছেলেবেলা থেকে মানসীদি কোলে পিঠে করে বড় করেছে হিয়াকে। সাজানো সংসারে বাবা মায়ের আদরের হিয়ার ছেলেমানুষি ,অকারণ  অভিমান,আবদার মানসীদির কাছে প্রশ্রয় পেয়ে এসেছে। এক এক করে সবাই  ছেড়ে গেলে ও মানসীদি সাথে রয়ে গেছে। বিয়ের এক বছর পার  হওয়ার আগেই হিয়ার জীবনে এসেছে চরম বিপর্যয়। আপিস ফেরতা হিয়া চলন্ত ট্রেনের সামনে থেকে এক বৃদ্ধাকে ধাক্কা দিয়ে সরিয়ে বাঁচাতে গিয়ে নিজের পা দুটি সারা জীবনের মতো হারিয়েছে। অসহ্য যন্ত্রণা নিয়ে হাসপাতালে যখন জ্ঞান ফিরেছিল ,ঝাপসা চোখে মাথা ঝিমঝিম করা দৃষ্টিতে দেখেছে স্বামী চয়ন,মা,বাবা,মানসীদি আর অচেনা দুজনকে। পরে জেনেছে ওনারা বৃদ্ধার দুই ছেলে। হিয়ার জীবনে আর  কিছু ভালো হয়নি। শ্বশুরবাড়ি,চয়ন তার জীবনে আর ফিরে আসেনি। একমাত্র সন্তানের এমন দুর্দশা মানতে পারেনি মা বাবা। দু'বছরের মধ্যেই বাবার ব্রেইন হেমারেজ আর  মা হঠাৎই বাথরুমে মাথা ঘুরে পড়ে রক্তারক্তি কান্ড। স্পট ডেথ। এক আকাশ দুঃখের  মাঝে অচল শরীর আর  বেঁচে থাকা মনে স্বপ্ন জাগায় নভঃ নীলিমা। জানালার পর্দা সরিয়ে ঝিরঝিরে হাওয়া  বয়। বিকেলে চায়ের কাপ হাতে আকাশের দিকে চেয়ে হিয়া ভাবে,খোলা এই ক্যানভাসে আসমানি, সাদা ,ধূসর রঙেরা মেঘের পরতে পরতে তুলি বুলিয়ে চলে। মন ভরে যায় । ভেসে চলা রঙিন মেঘেরা এই থেমে থাকা জীবন কে কি ভাসিয়ে নিতে পারেনা? সন্ধ্যে হয়, লালিমা ছড়িয়ে অস্তাচলে রবি ডুব দিয়ে নেয়ে চলে রাতের অভিসার পানে। রাতের আকাশে স্নিগ্ধ চন্দ্রিমার আলো মায়া জড়িয়ে দেয় ক্লান্ত হিয়ার দেহে মনে।

No comments:

Post a Comment