Saturday, December 25, 2021

সেদিনের বড়দিন - বারিদ বরন গুপ্ত [ছবি দেখে লেখা - পর্ব ১৫]

সেদিনের বড়দিন

- বারিদ বরন গুপ্ত

সময়টা সাতের দশকের শেষের দিকে! বয়স দশ এগারো হবে, মন্তেশ্বর উচ্চ বিদ্যালয়ে খুব সম্ভবত ষষ্ঠ শ্রেণীতে পড়ি, বিদ্যালয় বড়দিনের ছুটি পড়েছে, পড়াশোনার চাপ নেই, মাঠ থেকে ধান উঠে গেছে, খোলা মাঠ, আমাদের একটাই কাজ গরু নিয়ে মাঠে একটু চড়ানো আর তার সাথে উপরি পাওনা ঘুড়ি ওড়ানো!

             আমি ভোম্বল রাতুল আরো অনেক পাড়ার ছেলেরা ঘুড়ি লাটাই আর গরু নিয়ে মাঠে গেছি , মাঠে গরু ছেড়ে দিয়ে আনন্দে ঘুড়ি ওড়াচ্ছে, হঠাৎ রাতুল বলল-

---আজা আর ঘুড়ি উড়িয়ে লাভ নেই, চ মাঠে ধান কুড়াই, জানিসনা আজ বড়দিন! নগেন কাকার দোকানে দেখলাম অনেক রুটি কেখ এসেছে!

---- আমি বললাম তো কি হবে?

--আরে ওই ধান বিক্রি করে রুটি কেক নিয়ে আসব, তারপর সবাই মিলে একসাথে খাব!

---ঠিক তাই হবে-আমি বললাম

তারপর সবাই মিলে মহানন্দে ধান কূড়াতে লাগলাম তখনকার দিনে মাঠে ধান উঠে গেল জমিতে অনেক ধানের শীষ পড়ে থাকতো, ওইসব শেষ করে আমরা দোকানে বিক্রি করতাম। আজ সব অতীত! অঘ্রাণ মাসের মধ্যে মাঠ ফাঁকা হয়ে যায়!

           ধান কুড়ানো শেষ, তারপর আমি আর রাতুল মিলে চললাম নগেন কাকার দোকানের দিকে! গিয়ে দেখলাম, বিভিন্ন রকমের রুটি  কেক এসেছে, আমরা চারজনে চারটি  পাউরুটি কিনলাম! তারপর সবাই একসাথে মাঠেই খেলাম!

----- বড়দিন আবার কিরে? - রাতুল বলল

----- কেন জানিস না!

----- নারে!

----- বড়দিন হল যীশুখ্রিস্টের জন্মদিন, আবার এই দিন থেকে দিন বড় হতে থাকে, রাত ছোট হয়ে যায়!

----- "ও তাই নাকি!-আমি বললাম!

----- এইজন্যেই তো স্কুলে ছুটি দিয়েছে

             তখনকার দিনে বড়দিনে এত হৈ হুল্লোড় হতো না, বলতে গেলে বড়দিনে  সেরকম কোনো অনুষ্ঠান হতো না!, তবে পৌষ মাসের শেষ দিনে পিঠে সংক্রান্তি হত!

            আজ সব অতীত, বিস্মৃতির ছায়ায়! বড়দিনে চলে কেক পেটিস, চলে পিকনিকের ধুম, সেদিন মাঠে বসে একসাথে রুটি খাওয়ার আনন্দ আজ বড়দিনের পিকনিকে ও তার ছিটেফোটা খুঁজে পাওয়া যায় না!

No comments:

Post a Comment