Tuesday, December 7, 2021

কবিতাগুচ্ছ - সৌমেন্দ্র দত্ত ভৌমিক

দিশা

- সৌমেন্দ্র দত্ত ভৌমিক


চোখে সর্ষে ফুলের অক্লান্ত মিছিলে হেঁটে হেঁটেও
        সংগ্রামে নাকাল নয় মন ও মনন...,
মনের সাথে মননের দীর্ঘ বোঝাপড়ায়
        কতটুকু ফাঁক গলে প্রস্তুত ফণা,
গনগনে আঁচে ঘোরাঘুরি করে হয় নি এবারও জানা।
রাজপথে ব্যর্থ অকথ্য ব্যথিত ঘুরপাকে ঘুরপাকে
শক্তি ক্ষয়ের হিসেবেও নানান দেদার গরমিল,
যৌবনের কান্না শুনতে শুনতে শুনতে এখনো
         ঘুমিয়ে পরাক্রমের অশান্ত দিল।
নেশাতুর হলকর্ষণে সর্ষে ফুলের রমরমা ফলনে
আগুনের সতত অভাব-অনটন,
অনটনের সেই অভাবী রথে এবার আসুক ফিরে দিশা,
ঐঐ দিশাতেই সারথির কাছে পথে পথে সুরম্য রথে
ফুলের মুক্ত সুবাসে শ্রীচরণ পাবে মুক্তকচ্ছ ভাষা...।


নিরহঙ্কারী

- সৌমেন্দ্র দত্ত ভৌমিক


‘আমিত্বে’র থেকে অনাবিল ললিত উত্তরণে
সুখ যেন ওড়ে পতপত সঠিক নিশানায়...,
মন এই কাম্য অভিসারে অতি উচ্ছ্বাসে
          সানন্দে দিল করতালি,
তাই ফুরফুরে আবহাওয়ায় ভাবনায় জাগে,
         আমি শুধু আমার-ই মালি!
এমন বিপ্লবে সহাস্য অভ্যর্থনায় কেন গরহাজির
          সদা হাস্য লাস্যময়ীর দল?
চেতনার ইঞ্চি ইঞ্চি পথ-ভ্রমণে বুঝি
          অসাড় অবাধ নাকি জবরদখল!
‘আমি’ ‘আমি’ ছেড়ে সাবলীল পুণ্য প্রভাতে
          জাগ্রত আমি শিমুল তুলোর মতন।
এখন কত আলোকের প্রকাশ্য অভিবাদন
এখন জীবনে নেই কোন ভারী ওজন,
এখন ভালবাসার চুমুর সংলাপে নাচন-কোদন-
অনায়াস চলনবলনে যেতেই পারি উত্তমের কাছে,
তখন আমাকে আমি খুব ভালোই চিনি
           যার সমতুল্য কোথায় জুড়ি?


খননকর্ম

- সৌমেন্দ্র দত্ত ভৌমিক


গর্ত খোঁড়া চলেছেই।প্রতিদিন বাড়ছে আয়তনে
বেশ বেশ বেশ কয়েক ফুট।
খুশী-ডগমগ,আনন্দ উচ্ছল মুখের পরিধিতে
দৃপ্ত নিপুণতা যেন এক পরিচিত ভগ্নদূত।
কুশলী হাত ভূত-বর্তমান-ভবিষ্যৎ সবকিছু
এক ছত্রতলে আনতে বদ্ধপরিকর।
গর্ত খোঁড়ায় তবু নেই অন্ত।
ক্ষেত্রফলের ইঞ্চি ইঞ্চি তুখোড় বাড়-বাড়ন্তে
গর্তের হাঁ-টা খুবই বড়সড়।
সামনে দাঁড়ালেই হিমেল স্রোত শিরায়-শিরায়
তীব্র অজানিত আন্দোলন।
প্রত্নতত্ত্বের সন্ধানী চোখ অকথ্য অবাধ্য শূন্যতায়
মৃগীর মতন এদিক-ওদিক নড়েচড়ে।
গর্ত-খনন তবুও উদ্যোগীর বাঁচন।
খননের গভীরতা যত বাড়ে আর বাড়ে
অভব্য উল্লাসে ততই লম্ফনে আমোদিত অশালীন মন।

No comments:

Post a Comment