Tuesday, September 7, 2021

কবিতাগুচ্ছ - সুজিত বসু

আয়নায় কয়েকটি মুখ

- সুজিত বসু


ঘরে আমার আয়না
কিন্তু তাতে নিজের মুখ আর আদৌ দেখা যায় না
(সে কি মশাই, কি দেখছেন তবে?)
লকলকে জিভ বেরিয়ে আছে, এ মুখ যে কার!
এই কি আমার
মুখ! শরীর ও লোমশ হলো কবে!
(বলছেন কি, কলিকালে আর কত কি হবে!)
 
বিকট মুখব্যাদান করে জন্তু বিশাল দেখাচ্ছে ভয়
এ মুখ যারই হোক না কেন, শত্রু মিত্র আমার তো নয়
(মনে তো হয়
মদের ঘোরে উলটো পাল্টা বকছে প্রলাপ
গান্ধীও তাই বলে গেছেন মদ খাওয়া পাপ)
 
সারা মুখে ব্রণর মতো কলঙ্কেরা সারি সারি
এই কি তবে
সঠিক প্রতিবিম্ব আমার, রণোল্লাসে
পিশাচ হাসে অট্টহাসে, ভাঙে আমার সাধের বাড়ি
(এই বাজারে বাড়ি থাকা মানেই ব্যাটা চোর জোচ্চোর)
মত্ত মুখের ছায়া এমন মুখর কেবল জয়োল্লাসে
আয়না জুড়ে জন্তু হাসে
(হাসবেই তো বাবাজীবন, তুমি এখন মাতাল যে ঘোর!)
 
ছোট্টবেলায় মায়ের কাছে ধরেছিলাম বায়না
রাখবো ঘরে আয়না
দেবদূতেকে দেখবো বলে, দেবদূতকে দেখতে হবে
(আর তারপর?)
দেখেওছিলাম দেবদূতকে কয়েক বছর
(ইয়ারকির আর জায়গা  পায়নি, বলছেটা কি!
তবুও একটু বাজিয়ে দেখি….আর তারপর?)
আজ দেখা যায় রক্তলোলুপ হায়না
(ঘোর কলিতে সব সম্ভব, বরং পালাই
হিংস্র এমন জন্তুকে ভাই বলুন কে ভয় পায় না)
 
যেই পালালো লোকটা অমনি হেসে উঠলো আয়না
বললো, এবার দেখো, এবার সত্যিকারের রূপ দেখাচ্ছি
বলতে বলতে মিলিয়ে গেল হায়না
দেবদূতও নয়, জন্তুও নয়, শুধুই মানুষ দেখতে পাচ্ছি ।
 
 

সবুজ বিষ

- সুজিত বসু


সবুজ বিষের পানপেয়ালায় দোয়েল মুখ;
নৈঋত কোণে উচ্ছল নীল নির্জনে
সোনালি বৃত্তে কুয়াশা ছড়ানো গভীর অসুখ;
ময়ূরের কেকা, অলংকারের শিঞ্জনে
গ্রহণ লেগেছে; তবু বনে
অগ্নিগর্ভ পাতাগুলো কাঁদে, রুপোতারে
অসহ্য ব্যথা, বুক থেকে খসা সাদা পালক
কালো করে দেয় পঙ্কিল ধোঁয়া, তখন শোক
মিছিলের মাঝে চাবিটা হারায়;  নদীপারে
করুণ সারস ডানা ঝাড়ে
 
পেয়ালায় ভরা সবুজ রঙের তীব্র বিষ
পল অনুপল গোণে শকুনেরা অধিবাসে,
কান ঢাকলেই চিতার আওয়াজ অহর্নিশ
হিমেল হাওয়ার নিশ্বাসে।

6 comments:

  1. বাঃ। একেবারে অন্য চমকের লেখা পেলাম এবার। অসাধারণ মেটানোর অনন্য ছন্দে ধরেছেন। তাঁর বোনকে এমন শব্দে সাজিয়েছেন এই মুন্সিয়ানা খুব সুলভ নয়। ধন্যবাদ কবি, ধন্যবাদ শব্দদ্বীপ।

    ReplyDelete
  2. মেটাফোর ও বোধ শব্দগুলো autocorrection-এ ভুল হল

    ReplyDelete
  3. খুব সুন্দর ।একদম অন্য অন্য রকম কবিতা উপহার দিয়েছেন কবি আমাদের ।আমরা কবির কাছে নুতন নুতন কবিতা উপহার পাবো॥সেই আশাতে অপেক্ষা করছিলাম ।কবি আমাদের তেমনই কবিতা উপহার দিয়েছেন । কবিকে প্রণাম ।
    স্বপ্না ভট্টাচার্য্য।

    ReplyDelete
  4. কবির লেখা আয়নায় কয়েকটি মুখ ও সবুজ বিষ দুটো কবিতা পড়েই আমার খুবই ভালো লেগেছে। একদম নূতন ধরনের কবিতা কবি আমাদের উপহার দিয়েছেন। কবির এই নূতন নূতন কবিতা পড়ার সুযোগ করে দেওযার জন্য শব্দদ্বীপকে অনেক ধন্যবাদ।

    ReplyDelete
  5. শ্রী সুজিত বসুর দুটো কবিতাই আইনায় কয়েক্তি মুখ আর সবুজ বিষ পড়ে খুবভালো লাগলো। নতুন ধরনের এই ২ট কবিতা উপহার দেয়ার জন্য কবি শ্রী সুজিত বসুকে এবং শব্দদিপকে অনেক ধন্যবাদ রইলো।
    অমিতাভ ভট্টাচার্য কলিকাতা

    ReplyDelete